ফা-হিয়েন (Fa-Hien)

আজ আমরা ফা-হিয়েন (Fa-Hien) -এর জন্ম পরিচয়, বিভিন্ন নাম, ভারতে আসার কারণ, ভারতে অবস্থান কাল, সংস্কৃত শিক্ষা ও সাহিত্য সংগ্রহ, উল্লেখযোগ্য গ্ৰন্থ, শেষ জীবন সম্পর্কে জানবো।

চিনের বৌদ্ধ পর্যটক ফা হিয়েন প্রসঙ্গে তার জন্ম পরিচয়, সঠিক নামের উচ্চারণ, ফা হিয়েনের বিভিন্ন নাম, ফা হিয়েনের ভারতে আসার কারণ, ভারতের উদ্দেশ্যে ফা হিয়েনের যাত্রা, ফা হিয়েনের যাত্রাপথ, ফা হিয়েনের ভারতে প্রবেশ, ফা হিয়েনের ভারতে সফরকাল, ফা হিয়েনের ভারতে অবস্থানকাল, ফা হিয়েনের পরিদর্শন স্থান, নগর পরিদর্শক ফা হিয়েন, ফা হিয়েন কর্তৃক সংস্কৃত শিক্ষা ও সাহিত্য সংগ্ৰহ, বৌদ্ধ ধর্ম সম্পর্কে ফা হিয়েনের ব্যাখ্যা, প্রত্যাবর্তনের পূর্বে সংস্কৃত গ্ৰন্থ সংগ্ৰহ, ফা হিয়েনের ভ্রমণ বৃত্তান্ত বা গ্ৰন্থ রচনা, ফা হিয়েনের বিবরণীতে পাটলিপুত্র নগর, ফা হিয়েনের বর্ণনায় গুপ্ত শাসন ব্যবস্থা, গুপ্ত বাণিজ্য সম্পর্কে ফা হিয়েনের বক্তব্য, ভারতের জনজীবন সম্পর্কে ফা হিয়েনের ভাষ্য, ফা হিয়েনের চিনে প্রত্যাবর্তন, ফা হিয়েনের উল্লেখযোগ্য গ্ৰন্থ, চিনে ফা হিয়েনের শেষ জীবন, ফা হিয়েনের ভারত সফরের শেষ পর্যায়, ফা হিয়েনের তমলুকে অবস্থান, ফা হিয়েনের শ্রীলঙ্কা সফর ও পরবর্তী যাজকদের উপর ফা হিয়েনের প্রভাব

চীনা পর্যটক ফা-হিয়েন (Chinese tourist Fa-Hien)

জন্ম৩৩৭ খ্রিস্টাব্দ
দেশচীন
ধর্মবৌদ্ধ ধর্ম
উল্লেখ্যযোগ্য কাজফো-কুয়ো-কি
মৃত্যু৪২২ খ্রিস্টাব্দ
ভ্রমণভারত
ফা-হিয়েন

ভূমিকা :- ফা-হিয়েন প্রথম চৈনিক বৌদ্ধ তীর্থযাত্রী, যিনি মধ্য এশিয়া, ভারত ও শ্রীলঙ্কা ভ্রমণ করে তাদের সম্পর্কে বর্ণনা লিপিবদ্ধ করে গেছেন।

ফা-হিয়েন নামের সঠিক উচ্চারণ (Correct pronunciation of the name Fa-Hien)

এই যাজকের নামের সঠিক উচ্চারণ সম্ভবত ফাজিয়ান এবং তা ফা-সিয়েন ফা হিয়েন হিসেবেও লেখা হয়।

ফা-হিয়েনের জন্ম পরিচয় (Fa-Hien’s birth identity)

পূর্ব জিন রাজবংশের শাসনামলে চতুর্থ শতাব্দীতে শানসি প্রদেশে ফা হিয়েন জন্মগ্রহণ করেন।

ফা-হিয়েনের বিভিন্ন নাম (Various names of Fa-Hien)

তাঁর জন্মের পর নাম ছিল সেহি। পরে তিনি ফাসিয়ান বা ফা হিয়েন নামটি গ্রহণ করেন, যার আক্ষরিক অর্থ “ধর্মের জাঁকজমক”।

ফা-হিয়েনের ভারতে আসার কারণ (Fa-Hien’s reason for coming to India)

বৌদ্ধধর্মে ব্রতিত্ব লাভ করার পর ফা হিয়েনের মনে বৌদ্ধ ধর্মের মঠতান্ত্রিক নীতি সংবলিত গ্রন্থ ‘বিনয় পিটক’-এর সন্ধানে ভারতে আসার ইচ্ছা জাগ্রত হয়।

ফা-হিয়েনের ভারতের উদ্দেশ্যে যাত্রা (Fa-Hien’s journey to India)

৩৯৯ খ্রিষ্টাব্দে ফা হিয়েন যখন ভারতের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেন তখন তার বয়স সম্ভবত ৬৪ বছর।

ফা-হিয়েনের যাত্রাপথ (The Journey of Fa-Hien)

পঞ্চম শতাব্দীর প্রথম দিকে ফা হিয়েন ভারত সফর করেন। তিনি চীন থেকে বরফের মরুভূমি এবং এবড়োখেবড়ো পাহাড়ি গিরিপথ ধরে হেঁটেছেন বলে জানা যায়।

ফা-হিয়েনের ভারতে প্রবেশ (Fa-hien’s entry into India)

ফা হিয়েন উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ভারতে প্রবেশ করেন এবং পাটলিপুত্র নগরীতে পৌঁছান।

ফা-হিয়েনের ভারতে সফরকাল (Fa-hien’s visit to India)

ভারতের গুপ্ত সাম্রাজ্য -এর রাজা দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্ত -এর রাজত্বকালে ফা-হিয়েন ভারত সফরে এসেছিলেন।  

ফা-হিয়েনের ভারতে অবস্থান কাল (Fa-Hien’s stay in India is long)

ফা হিয়েন উত্তর-পশ্চিম দিক দিয়ে ভারতীয় উপমহাদেশে প্রবেশ করেন। তাঁর স্মৃতিকথা ভারতে তাঁর ১০ বছরের অবস্থান বর্ণনা করে।

ফা-হিয়েনের পরিদর্শন স্থান (Visiting Place of Fa-Hien)

ফা হিয়েন গৌতম বুদ্ধ -এর সাথে সম্পর্কিত প্রধান স্থানগুলি, সেইসঙ্গে শিক্ষার বিখ্যাত কেন্দ্র এবং বৌদ্ধ বিহারগুলি পরিদর্শন করেছিলেন।

নগর পরিদর্শক ফা-হিয়েন (City Inspector Fa-Hien)

ফা হিয়েন কপিলাবস্তু (লুম্বিনি), বোধগয়া, বেনারস (বারাণসী), শ্রাবস্তী এবং কুশিনগর পরিদর্শন করেছিলেন, যা সবই বুদ্ধের জীবনের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত।

ফা-হিয়েনের সংস্কৃত শিক্ষা ও সাহিত্য সংগ্রহ (Fa-Hien’s collection of Sanskrit learning and literature)

ফা হিয়েন সংস্কৃত শিখেছিলেন এবং গান্ধার, পাটলিপুত্র (পাটনা), তক্ষশীলা থেকে ভারতীয় সাহিত্য সংগ্রহ করেছিলেন।

বৌদ্ধ ধর্ম সম্পর্কে ফা-হিয়েন (Fa-hien on Buddhism)

ফা হিয়েনের স্মৃতিকথা হীনযান (থেরাবাদ) এবং উদীয়মান মহাযান ঐতিহ্যের পাশাপাশি পঞ্চম শতাব্দীর ভারতীয় বৌদ্ধধর্মের বিভিন্ন বিভাগ ও ভিন্নমত থেরবাদ উপ-ঐতিহ্যের উল্লেখ করে।

প্রত্যাবর্তনের পূর্বে ফা-হিয়েন কর্তৃক সংস্কৃত গ্ৰন্থ সংগ্ৰহ (Collection of Sanskrit texts by Fa-hien before his return)

চীনে ফিরে যাওয়ার আগে ফা-হিয়েন ভারতের প্রচুর সংস্কৃত গ্রন্থ সংগ্রহ করেছিলেন।

ফা-হিয়েনের ভ্রমণবৃত্তান্ত (Fa-hien’s Travelogue)

ফা হিয়েন তার ভ্রমণের উপর একটি বই লিখেছিলেন। এই বিবরণে তৎকালীন ভারতের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেছেন তিনি।

  • (১) প্রাথমিক ভাবে ফা-হিয়েন তার ভ্রমণ কাহিনীতে বৌদ্ধধর্মের বিবরণ সম্পর্কে লিপিবদ্ধ করেন।
  • (২) সিল্ক রুটের ধারে থাকা অসংখ্য দেশের ভূগোল ও ইতিহাস সম্পর্কে বিস্তারিত বিবরণ ফা হিয়েন তার বিবরণে তুলে ধরেছেন।
  • (৩) ফা হিয়েন মধ্যদেশের তক্ষশীলা, পাটলিপুত্র, মথুরা এবং কনৌজ -এর মতো শহরগুলির কথা লিখেছেন। তিনি আরও লিখেছেন যে মধ্যদেশের বাসিন্দারা চীনাদের মতো খায় এবং পোশাক পরে। তিনি পাটলিপুত্রকে অত্যন্ত সমৃদ্ধ শহর হিসেবে ঘোষণা করেন।

ফা-হিয়েনের বিবরণীতে পাটলিপুত্র নগর (Pataliputra Nagar in Fa-Hien’s account)

পাটলিপুত্র নগর এবং সেখানকার নাগরিক সভ্যতা ফা হিয়েনের বিবরণীতে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা পেয়েছে। আর প্রশংসা পেয়েছে সরকারি ব্যয়ে সরাইখানা, চিকিৎসালয় ও অনাথ আশ্রমগুলি পরিচালনার উদ্যোগ। মৌর্যদের ধ্বংসপ্রায় কাঠের রাজপ্রাসাদের গঠন নৈপুণ্য ও শিল্পরীতি তাঁকে বিস্মিত করেছিল।

ফা-হিয়েনের বর্ণনায় গুপ্ত শাসনব্যবস্থা (Gupta regime as described by Fa-hien)

ফা হিয়েনের মতে, দায়িত্বশীল কর্মচারীদের হাতে ছিল দেশের শাসন ভার, তারা অকারণে প্রজাপীড়ন করত না । দণ্ডবিধি লঘু হওয়া সত্ত্বেও দেশে চোর ডাকাতের উৎপাত ছিল না। এ ছাড়া করভার বেশি না হওয়ায় প্রজারাও ছিল সুখী ও সচ্ছল

গুপ্ত বাণিজ্য সম্পর্কে ফা-হিয়েনের অভিমত (Fa-Hien’s opinion of secret trade)

‘ফো কুয়ো কি’ গ্রন্থে গুপ্ত নৌবহর ও বাণিজ্য সংক্রান্ত তথ্যও রয়েছে। পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত সোপারা ও পূর্ব উপকূলে তাম্রলিপ্ত বন্দর দিয়ে ভারতীয় বাণিজ্যতরী সিংহল ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে যেত।

ভারতীয় জনজীবন সম্পর্কে ফা হিয়েনের ভাষ্য (Fa Hien’s commentary on Indian public life)

  • (১) ভারতীয়দের নীতিবোধ, সংযত চরিত্র ও উচ্চ নৈতিকতা নিয়ে ফা-হিয়েন প্রশংসায় উচ্ছ্বসিত।
  • (২) পাশাপাশি জাতিভেদ ও অস্পৃশ্যতার কড়াকড়িতে ভারতীয় সমাজ যে জর্জরিত ছিল ফা হিয়েন তার উল্লেখ করতে ভোলেননি। অধিকাংশ ভারতীয়ই ছিল নিরামিষভোজী ও অহিংসায় বিশ্বাসী ।
  • (৩) মধ্যদেশে ব্রাহ্মণ্যধর্ম প্রবল হলেও পাঞ্জাব ও বাংলাদেশ -এ বৌদ্ধধর্ম ছিল জনপ্রিয়। দেশের সর্বত্র হিন্দু ও বৌদ্ধদের মধ্যে প্রীতির সম্পর্ক বিরাজ করত।

ফা-হিয়েনের চীনে প্রত্যাবর্তন (Fa-hien’s return to China)

ফা হিয়েন ৪১২ খ্রিস্টাব্দে চীনে ফিরে আসার যাত্রা শুরু করেন এবং বর্তমানে নানজিং বা নানকিং -এ বসতি স্থাপন করেন।

প্রত্যাবর্তন কালে ফা-হিয়েনের বৌদ্ধ গ্রন্থ সংগ্রহ (Fa-Hien’s collection of Buddhist texts during his return)

ফা হিয়েন তার সাথে বিপুল সংখ্যক সংস্কৃত বৌদ্ধ গ্রন্থ এবং বৌদ্ধ ধর্মের পবিত্র মূর্তি ফিরিয়ে নিয়েছিলেন।

ফা-হিয়েনের উল্লেখযোগ্য গ্ৰন্থ (Fa-Hien’s Notable Book)

সম্ভবত ৪১৪ খ্রিস্টাব্দে তিনি ‘ফো-কুয়ো-কি’ বা বৌদ্ধ রাজ্যের গ্ৰন্থটি লিখেছেন।

চীনে ফা-হিয়েনের শেষ জীবন (Fa-Hien’s last life in China)

মৃত্যুর আগে পর্যন্ত ফা হিয়েন পরবর্তী দশক কাটিয়েছেন ভারত থেকে তার সাথে আনা বৌদ্ধ সূত্রগুলি চীনা ভাষায় অনুবাদ করতে।

 ফা-হিয়েনের ভারতে অধিকাংশ সময় (Most of Fa-Hien’s time in India)

ফা হিয়েন তার ভ্রমণের অধিকাংশ সময়ই মধ্য ভারত বা মগধ পরিভ্রমণ ও তার বর্ণনায় অতিবাহিত করেন। ফা-হিয়েন দক্ষিণ ভারতের অঞ্চলসমূহ ভ্রমণ করেন নি।

ফা-হিয়েনের ভারত সফরের শেষ পর্যায় (The last leg of Fa-Hien’s visit to India)

ভারত ভ্রমণের শেষ পর্যায়ে ফা হিয়েন সীমান্ত রাজ্য চম্পার মধ্য দিয়ে বাংলায় প্রবেশ করেন। তার গন্তব্যস্থল ছিল সে সময়ের বিখ্যাত আন্তর্জাতিক বন্দর তাম্রলিপ্তি (তমলুক)।

ফা-হিয়েনের তমলুকে অবস্থান (Fa-Hien’s position in Tamluk)

শ্রীলঙ্কা যাওয়ার পূর্বে ফা হিয়েন দীর্ঘ দুবছর তাম্রলিপ্তিতে বৌদ্ধ ধর্মগ্রন্থের অনুলিপি তৈরি ও বৌদ্ধ মূর্তির ছবি আঁকেন। তার বিবরণী থেকে জানা যায়, এ সময় তাম্রলিপ্তিতে চব্বিশটি বৌদ্ধ মঠ ও অনেক বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ছিলেন।

ফা-হিয়েনের শ্রীলঙ্কা সফর (Fa-Hien’s visit to Sri Lanka)

ফা হিয়েন সমুদ্রপথেই ভারত ত্যাগ করে শ্রীলঙ্কা পরিভ্রমণের পর চীনে প্রত্যাবর্তন করেন। সমুদ্রে অনেক কষ্টকর পরিস্থিতি মোকাবিলা করে ৪১৪ খ্রিষ্টাব্দে ফা-হিয়েন চীনে প্রত্যাবর্তন করেন।

পরবর্তী যাজকদের অনুপ্রেরণা ফা-হিয়েন (Fa-Hien inspired the later priests)

ফা-হিয়েনের তীর্থযাত্রা চীনের পরবর্তী প্রজন্মের যাজকদের অনুপ্রাণিত করেছে। চরমসত্য (ধম্ম) অনুসন্ধানে বুদ্ধের পবিত্র ভূমি পরিভ্রমণে জলপথ অথবা স্থলপথের সমস্ত কষ্টই তারা অগ্রাহ্য করেছেন।

উপসংহার :- ভারতীয় উপমহাদেশে আগমন করা চৈনিক পর্যটকদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য হলেন ফা হিয়েন, হিউয়েন সাং, ইৎ-সিং প্রমুখ। সুপ্রসিদ্ধ চৈনিক পর্যটকদের লিখিত বিবরণাদির মধ্যে ফা-হিয়েনের ভ্রমণ বৃত্তান্তই সর্বাপেক্ষা প্রাচীন।

(FAQ) ফা-হিয়েন (Fa-Hien) হতে জিজ্ঞাস্য?

১. ফা-হিয়েন কে ছিলেন?

ফা-হিয়েন ছিলেন প্রথম চৈনিক বৌদ্ধ তীর্থযাত্রী, যিনি মধ্য এশিয়া, ভারত ও শ্রীলঙ্কা ভ্রমণ করে সেগুলি সম্পর্কে বর্ণনা লিপিবদ্ধ করে যান ।

২. ফা হিয়েন এর জন্ম কোথায় হয়?

চীন।

৩. ফা হিয়েন এর বই এর নাম কী?

ফো-কুয়ো-কি ।

৪. ফা-হিয়েন কবে জন্মগ্রহণ করেন?

আনুমানিক ৩৩৭ খ্রিস্টাব্দ ।

৫. ফা-হিয়েন কবে মারা যান?

আনুমানিক ৪২২ খ্রিস্টাব্দে।

৬. ফা-হিয়েন কার রাজত্বকালে ভারতে আসেন?

গুপ্ত সম্রাট দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্তের রাজত্বকালে পঞ্চম শতাব্দীতে ভারতে আসেন ।

Leave a Comment