ষোড়শ মহাজনপদ: অশ্মক

ঐতিহাসিক ধর্মীয় স্থান অশ্মক -র অবস্থান, ইতিহাস, ধর্মীয় অর্থনৈতিক সংস্কৃতির গুরুত্ব সম্পর্কে আলোচনা করা হল । খ্রিস্ট পূর্ব ষষ্ঠ শতকে ভারতে কোনাে কেন্দ্রীয় রাজশক্তি ছিল না। ভারতে কোনাে অখণ্ড সর্বভারতীয় রাষ্ট্র এই সময় ছিল না। একটা অখণ্ড রাষ্ট্রের পরিবর্তে ছিল যােলটি রাজ্য বা যােড়শ মহাজনপদ।

ষোড়শ মহাজনপদ:- যেমন – কাশী, কোশল, অঙ্গ, মগধ, বৃজি, মল্ল, চেদি, বৎস্য, কুরু, পাঞ্চাল, মৎস, শূরসেন, অশ্মক, অবন্তী, গান্ধার এবং কম্বোজ

মহাজনপদ: অশ্মক

পরিচিতি অন্যতম ষোড়শ মহাজনপদ
অবস্থানবর্তমান ভারতের গোদাবরী নদীর তীরে
রাজধানীপোটালি বা পোদান বা প্রতিষ্ঠান
অশ্মক

ভূমিকা :- প্রাচীন ভারতের পুরাণ অনুসারে অশ্মক জনপদ বা বৌদ্ধ গ্রন্থ অনুসারে অশ্মক মহাজনপদ খ্রিস্টপূর্ব ৭০০ থেকে ৪২৫ বা ৩৪৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত বিদ্যমান ছিল।

অবস্থান

অশ্মক গোদাবরী নদীর চারপাশে অবস্থিত ছিল। বর্তমান অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা এবং মহারাষ্ট্রের অঞ্চল অশ্মকের অন্তর্ভুক্ত ছিল।

অন্যতম ষোড়শ মহাজনপদ

খ্রিষ্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দীতে অন্যতম ষোড়শ মহাজনপদ হিসেবে বৌদ্ধ গ্রন্থ অঙ্গুত্তর-নিকায়ে উল্লেখ আছে।

নন্দ বংশের অধীনে

পুরাণে অশ্মককে নন্দ বংশের (খ্রীস্টপূর্ব পঞ্চম ও চতুর্থ শতক) অধিকৃত অঞ্চল হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাজধানী

অশ্মক রাজ্যের রাজধানী পোটালি বা পোদানা বলে পরিচিত ছিল, যা বর্তমানে তেলেঙ্গানা রাজ্যের বোধান নামে পরিচিত।

রাজা ব্রহ্মদত্ত

বৌদ্ধ গ্রন্থ মহাগোবিন্দ সুত্তান্ততে বর্ণিত আছে যে, অশ্মকের এক শাসক ব্রহ্মদত্ত যিনি পোতালি থেকে রাজ্য শাসন করতেন।

মৎস্য পুরাণের বর্ণনা

অশ্মকের পঁচিশ জন শাসকদের তালিকা মৎস্য পুরানে পাওয়া যায়, যারা মগধ সাম্রাজ্য -এর শাসক শিশুনাগ -এর সমসাময়িক ছিলেন।

দাক্ষিণাত্য যোগাযোগ

পাণিনির ‘অষ্টাধ্যায়ী’ গ্ৰন্থ থেকে জানা যায় যে, দাক্ষিনাত্য এবং কলিঙ্গ রাজ্যের সাথে অশ্মক রাজ্যের যোগাযোগ ছিল।

নামকরণ

বৌদ্ধিক সাহিত্য এবং রাজা হালের গাথা সপ্তশতী  গ্ৰন্থে অশ্মক ছাড়াও এই মহাজনপদ অসসক ও অসভক নামে পরিচিত ছিল।

হাথিগুম্ফা শিলালিপি

কলিঙ্গ রাজ খারবেল -এর হাতিগুম্ফা শিলালিপিতে মাসিকা (মাসিকনগর), মুষিকা (মূূূষিকানগর), অসিকা (অসিকানগর) শহরের বর্ণনা করা আছে।

আসিকানগর

অজয় মিত্র শাস্ত্রীর মতে, “আসিকা-নগর” বর্তমানে নাগপুর জেলার আদম গ্রামে ( ওয়েনগা নদীর তীরে ) অবস্থিত। গ্রামে খনন করা একটি পোড়ামাটির সিলে অস্মক জনপদের উল্লেখ রয়েছে।

প্রতিষ্ঠান

আশপাশের এলাকায় পৈঠান প্রাচীন কালে পরিচিত ছিল প্রতিষ্ঠান নামে। সাকেত বা অযোধ্যা ছিল শ্রাবস্তী থেকে প্রতিষ্ঠান যাবার পথে প্রথম বিশ্রাম নেবার জায়গা।

অর্থশাস্ত্র গ্ৰন্থের বর্ণনা

কৌটিল্য রচিত অর্থশাস্ত্র গ্ৰন্থের টীকাকার তটুস্বামিনের মতে, আধুনিক মহারাষ্ট্রের প্রাচীন নাম ছিল অস্মক। এই রাজ্যে ইক্ষুবাকু বংশের রাজারা রাজত্ব করত। এই বংশের উল্লেখযােগ্য রাজা ছিলেন অরুণ।

(FAQ) অশ্মক হতে জিজ্ঞাস্য ?

১. দক্ষিণ ভারতের একমাত্র মহাজনপদটির নাম কী?

অশ্মক।

২. অশ্মক মহাজনপদের রাজধানী কোথায় ছিল?

পোটালি।

৩. কোন নদীর তীরে অশ্মক মহাজনপদ অবস্থিত ছিল?

গোদাবরী।

Leave a Reply

Translate »