আলেকজান্ডারের অভিযানের বিরুদ্ধে ভারতীয়দের পরাজয়

ম্যাসি ডনের আলেকজান্ডারের অভিযানের বিরুদ্ধে ভারতীয়দের পরাজয় প্রসঙ্গে স্মিথের বক্তব্য, স্মিথের বক্তব্য বিচার, উন্নত অস্ত্র, সমরকৌশল, রণকৌশল, ভারতীয় রাজাদের বিশ্বাসঘাতকতা ও ভারতীয়দের জোট গঠনে অক্ষমতা সম্পর্কে জানবো।

আলেকজান্ডারের অভিযানের বিরুদ্ধে ভারতীয়দের পরাজয়

আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণ ৩২৭ খ্রিস্ট পূর্ব
মগধের রাজা ধননন্দ
হিদাস্পিসের যুদ্ধ আলেকজান্ডার ও রাজা পুরু
বিনা যুদ্ধে বশ্যতা রাজা অম্ভি
আলেকজান্ডারের অভিযানের বিরুদ্ধে ভারতীয়দের পরাজয়

ভূমিকা :- কান্দাহারের পার্বত্যভূমি থেকে বিপাশা তীর পর্যন্ত ম্যাসিডোনীয় বাহিনীর অপ্রতিহত অভিযান একথা প্রমাণ করে যে, সামরিক শক্তিতে, রণকৌশলে গ্রীকরা ভারতীয় অপেক্ষা অনেক উন্নত ছিল।

স্মিথের মন্তব্য

ভিনসেন্ট স্মিথ মন্তব্য করেছেন যে, “হিমালয় থেকে সমুদ্র পর্যন্ত আলেকজাণ্ডারের বিজয় পরিক্রমা একথা প্রমাণ করে যে, ইউরোপীয় রণনীতি, শৃঙ্খলা ও দক্ষতার সম্মুখীন হলে এশিয়ার সর্বশ্রেষ্ঠ সেনাদল অসহায় বোধ করত।”

স্মিথের মন্তব্য বিচার

ডঃ মজুমদার প্রমুখ ভারতীয় ঐতিহাসিকরা স্মিথের এই মন্তব্যে অতিশয়োক্তি দেখেছেন। তিনি প্রমাণ করার চেষ্টা করেছেন যে, –

  • (ক) হিন্দুকুশ থেকে বিপাশা ও ঝিলম থেকে সমুদ্র পর্যন্ত জয় করতে আলেকজাণ্ডারের ২ বছর ৫ মাস লেগেছিল। তাঁর মতে এটা বিজয়ীর পক্ষে খুব কৃতিত্বের কথা নয়।
  • (খ) ক্ষুদ্রক, মল্ল বা মালব এবং পুরু রাজাকে জয় করতে তাঁকে রীতিমত কষ্ট করতে হয়।
  • (গ) ভারতের শ্রেষ্ঠ শক্তি নন্দ রাজার সঙ্গে আলেকজাণ্ডারের কোনো যুদ্ধ হয়নি। সুতরাং আলেকজাণ্ডারের সামরিক শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণিত হয় না। আলেকজাণ্ডারের সেনাদল নন্দদের সম্মুখীন হতে ভয় পেয়েছিল বলে প্লুটার্ক বলেছেন।
  • (ঘ) আলেকজাণ্ডারের বিরুদ্ধে ভারতীয়রা মিলিতভাবে বাধা দেয়নি। ফলে আলেকজাণ্ডার ভারতীয় শক্তিগুলির বিরুদ্ধে একের পর এক নীতি নিয়ে অভিযান করার সুযোগ পান। ভারতীয়দের একতার অভাব তাঁর জয় লাভের সুযোগ করে দেয়।
  • (ঙ) আরও বলা হয় যে, ভারতে তিনি যে অঞ্চল জয় করে গ্রীক শাসনভুক্ত করেন। তা ছিল ক্ষণস্থায়ী।

যুদ্ধপ্রিয় উপজাতিদের জয়

আলেকজাণ্ডার ভারতের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের যুদ্ধপ্রিয় উপজাতিদের জয় করেছিলেন একথা অস্বীকার করা যায় না। এর কারণ হিসেবে বলা চলে যে,

(১) উন্নত অস্ত্র

আলেকজাণ্ডারের বাহিনীর অস্ত্রসজ্জা ও রণকৌশল ভারতীয়দের অপেক্ষা উন্নত ছিল। ভারতীয় সেনাদের বুক ও মাথা চামড়ার বৰ্মে ঢাকা থাকত। যুদ্ধের জন্য তাদের ঢালও ছিল চামড়ার তৈরি। তারা শত্রুর বিরুদ্ধে তলোয়ার ব্যবহার করত। এর বিরুদ্ধে গ্রীকরা ব্রোঞ্জের বর্মে মাথা, বুক ঢাকা দিয়ে, ২১ ফুট লম্বা বল্লম হাতে যখন ঝাঁপিয়ে পড়ত তখন ভারতীয়রা তাদের সাথে পেরে উঠত না। গ্রীক হপলাইট সেনার বল্লম ভারতীয়দের চামড়ার শিরস্ত্রাণ ভেদ করে বিঁধে যেত।

(২) সমরকৌশল

গ্রীক ঘোড়সওয়াররা ছিল দক্ষ যোদ্ধা। ভারতীয়রা তাদের অশ্বরোহী সেনাদের আক্রমণের কাজে ভালভাবে ব্যবহার করতে পারেনি। ভারতীয় হাতিকে নিয়ন্ত্রণে রাখা খুব মুস্কিল ছিল। কারণ এদের শত্রু-মিত্র জ্ঞান ছিল না। মোট কথা, ভারী ও জটিল ভারতীয় বাহিনীর তুলনায় গ্রীক বাহিনী ছিল দ্রুতগতি, আক্রমণপটু ও শৃঙ্খলাবদ্ধ। এজন্য আলেকজাণ্ডার সফল হন।

(৩) রণকৌশল

আলেকজাণ্ডারের জয়ের অপর কারণ ছিল যে, তিনি তাঁর সেনাদলের পিছনের দিক সর্বদা সুরক্ষিত রাখতেন। শত্রুকে পিছন থেকে আক্রমণ করার তিনি কোনো সুযোগ দিতেন না। অধিকৃত অঞ্চলে দুর্গ স্থাপন এবং এখান থেকে খাদ্য সরবরাহ ছিল তার নিয়মিত ব্যবস্থা।

(৪) ভারতীয় রাজাদের বিশ্বাসঘাতকতা

আলেকজাণ্ডার ভারতীয় রাজাদের আভ্যন্তরীণ কলহ-বিবাদের সুযোগ কূটনৈতিকভাবে ব্যবহার করেন। তক্ষশীলার অম্ভি প্রতিবেশী পুষ্কলাবতীর অষ্টক রাজার সঙ্গে শত্রুতার জন্য আলেকজাণ্ডারের বশ্যতা স্বীকার করেন। তিনি আলেকজাণ্ডারকে নানাভাবে সাহায্য করেন। তিনি পথ দেখিয়ে গ্রীকদের ডেকে আনেন।

(৫) ভারতীয় রাজাদের সাহায্য

বর্ণাবতীর রাজা শশীগুপ্তও আলেকজাণ্ডারকে নানাভাবে সাহায্য করেন। পুরু রাজা আলেকজাণ্ডারের বশ্যতা স্বীকারের পর আলেকজাণ্ডারকে সেনা দিয়ে, পরামর্শ দিয়ে নানাভাবে সাহায্য করেন।

(৬) জোট গঠনে অক্ষমতা

উত্তর-পশ্চিমের রাজ্যগুলির মধ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদ ও পরস্পরের প্রতি বিরোধ এত তীব্র ছিল যে, তারা আলেকজাণ্ডারের বিরুদ্ধে কোন জোট গড়তে পারেনি। প্রতি রাজ্য আলাদাভাবে স্বাধীনতার জন্য প্রবল লড়াই করলেও যৌথভাবে বাধাদান করার মত মানসিকতা তাদের ছিল না।

উপসংহার :- উত্তর-পশ্চিমের রাজ্যগুলি তাদের স্থানীয় বিরোধকে এত বড় করে দেখত যে, সামগ্রিক নিরাপত্তার জন্য যৌথ প্রচেষ্টার কথা তারা ভাবতে পারেনি। তাই আলেকজান্ডার সাফল্য অর্জনে সক্ষম হন।

(FAQ) ম্যাসি ডনের আলেকজান্ডারের অভিযানের বিরুদ্ধে ভারতীয়দের পরাজয় সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. আলেকজান্ডারের বিরুদ্ধে কোন ভারতীয় রাজা শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ে তোলেন?

রাজা পুরু।

২. আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণের সময় মগধের রাজা কে ছিলেন?

ধননন্দ।

৩. আলেকজান্ডার কখন ভারত আক্রমণ করেন?

আনুমানিক ৩২৭ খ্রিস্ট পূর্বে।

Leave a Reply

Translate »