শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রসঙ্গে শার্লামেনের সাম্রাজ্যের বিভাজন, সাধারণ সভা, মিসি ডোসিনিসি, শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় রাজপুত্রদের স্থান, প্রাদেশিক শাসন ব্যবস্থা, আইনগত দিক ও সামরিক ব্যবস্থা সম্পর্কে জানবো।

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা

ঐতিহাসিক ঘটনাশার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা
রাজধানীআখেন
শাসনতান্ত্রিক প্রদেশকাউন্টি
কাউন্টির প্রধানকাউন্ট
কাউন্টদের নিয়ন্ত্রণমিসি ডোসিনিসি
সামরিক শাসনকর্তামারকুইস বা মার্কগ্ৰাফ
শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা

ভূমিকা :- শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থার অন্যতম প্রধান নীতি ছিল কেন্দ্রীকরণ নীতি। তার শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় পুরাতন মেরোভিঞ্জিয়ান ব্যবস্থাকে অনুসরণ করা হয়েছিল। কিন্তু কিছুক্ষেত্রে আগের থেকে উন্নতি লক্ষ্য করা গিয়েছিল।

শার্লামেনের সাম্রাজ্যের বিভাজন

  • (১) শার্লামেন তাঁর সাম্রাজ্যকে কতকগুলি শাসনতান্ত্রিক বিভাগে ভাগ করে দিয়েছিলেন। এক্ষেত্রে পুরাতন মেরোভিঞ্জিয়ান পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছিল। শাসনতান্ত্রিক প্রদেশগুলিকে সাম্রাজ্যে ভাগ করা হয়েছিল। সেই শাসনতান্ত্রিক প্রদেশ বা “County” এর প্রধান ছিলেন কাউন্ট।
  • (২) সীমান্তবর্তী প্রদেশগুলিতে কাউন্টদের রাখা হয়েছিল। কাউন্টরা তাদের শাসনতান্ত্রিক প্রদেশগুলিকে দেখাশোনা করতেন এবং বিশেষ দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। কাউন্টরা আজীবন তাদের দায়িত্ব পালন করতেন এবং তাদের উদ্দেশ্য ছিল বংশানুক্রমিকভাবে যাতে তারা এই পদের দায়িত্বে থাকতে পারেন।
  • (৩) তারা যে সম্পূর্ণভাবে স্বাধীন ছিল তা নয়। কিন্তু তারা শার্লামেনের অনুগত ছিল এবং তাকে সহযোগিতা করত। শার্লামেন অনেক ক্ষেত্রেই কাউন্টিগুলিকে প্রত্যক্ষভাবে শাসন করতেন এবং কাউন্টরাও তার অধীনে থেকে শাসনকার্য চালাতেন।
  • (৩) ডিউকদের রাজত্ব Benevento, Brittany, Gascony ছাড়া অন্য রাজ্যগুলি দুর্বল হয়ে পড়েছিল। ডিউকদের স্বাধীন ক্ষমতা থাকলেও তারা সম্পূর্ণভাবে সম্রাটের নিয়ন্ত্রণাধীন ছিল। শার্লামেনের সময়কালে ‘county’ বা প্রদেশগুলি যে এককে বিভক্ত হয়েছিল তা ‘hundred’ বা ‘Vicariates’ নামে পরিচিত ছিল। কাউন্টদের সহযোগীদের ভাইস কাউন্টস এবং ‘Hundredman’ বা ‘Vicars’ বলা হত।

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সাধারণ সভা

  • (১) শার্লামেনের সরকার যে মুখ্য নীতি নিয়েছিল তা হল ব্যক্তিগত শাসন। শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থার ক্ষেত্রে সম্রাটই ছিলেন প্রধান। একটি Diet বা সাধারণ সভার অস্তিত্ব শার্লামেনের সময়কালে ছিল। যার অধিবেশন প্রত্যেক বছর মে মাসে বসত, যা ‘Fields of May’ নামে পরিচিত ছিল।
  • (২) প্রতি বছর মে মাসে অধিবেশন চলার সময় এই সভা সম্রাটকে বিভিন্ন উপদেশ এবং তথ্য সরবরাহ করত। এই সভা শাসনতান্ত্রিক ক্ষেত্রে সাহায্য করত। এই সভা পরামর্শ দিত এবং তথ্য সরবরাহ করত। সম্রাটের এক্তিয়ার ছিল সেই ব্যাখ্যা বা পরামর্শ তিনি গ্রহণ করতে পারতেন বা নাও গ্রহণ করতে পারেন।

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় মিসি ডোসিনিসি

  • (১) শার্লামেনের সময়কালে শাসনতান্ত্রিক ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ছিল মিসি ডোমিনিসি। শার্লামেন কাউন্টদেরকে ভয় পেতেন কারণ তারা অনেকক্ষেত্রেই শক্তিশালী পরিবারের সদস্য ছিল এবং কাউন্ট পদটি বংশানুক্রমিকভাবে অধিকার করেছিল। কাউন্টি ছিল কাউন্টদের ব্যক্তিগত শাসনতান্ত্রিক কর্মকেন্দ্রস্বরূপ।
  • (২) এই ব্যবস্থা উপলব্ধি করে কাউন্টদের ক্ষমতা প্রতিহত করতে ও তাদের উপর নজর রাখার জন্য শার্লামেন একটি নতুন পদের সৃষ্টি করেছিলেন। কাউন্টরা যাতে ক্ষমতার অপব্যবহার করতে না পারে তার জন্য মিসি ডোসিনিসি পদটি সৃষ্টি করা হয়েছিল। শার্লামেনের সময়কালে রাজকীয় প্রতিনিধিরাই ছিলেন মিসি ডোমিনিসি।
  • (৩) এরা সম্রাটের সঙ্গে জনগণের যোগাযোগ রক্ষার ক্ষেত্রে সেতু স্বরূপ ছিল। সম্রাটের কাছে তারা জনগণের অভাব-অভিযোগ সংক্রান্ত তথ্য পেশ করত। অভিজাত শ্রেণীর রাজকীয় সামন্তরা অবশ্য ‘ভাসি-ডেমিনিসি’ নামে পরিচিত ছিল।

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় রাজপুত্রদের স্থান

শার্লামেনের শাসনকালে ফ্রাঙ্ক প্রশাসনের কেন্দ্র ছিল প্যালাতিয়াম বা সম্রাটের বাসগৃহ। প্যালাতিয়াম বলতে ফ্রাঙ্ক প্রশাসনের রাজপ্রাসাদকে বোঝানো হয়ে থাকে। শার্লামেন তার তিন সন্তানকে সাম্রাজ্যের তিনটি অংশে নিয়োগ করেছিলেন। কিন্তু এই রাজপুত্ররা সম্রাট এবং কাউন্টদের যোগাযোগ মাধ্যম হিসাবে কাজ করেছিল। এইভাবে শার্লামেনের শাসনব্যবস্থার কেন্দ্রীকরণ হয়েছিল।

শার্লামেনের প্রাদেশিক শাসন ব্যবস্থা

  • (১) Charles luke Wells ‘The Age of Charlemagne (Charles The great)’ নামক গ্রন্থে শার্লামেনের প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার উল্লেখ করেছিলেন। শার্লামেন ক্যারোলিঞ্জিয় সাম্রাজ্যে যে শাসনব্যবস্থার সূচনা করেছিলেন তাতে প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থাও গুরুত্ব পেয়েছিল।
  • (২) ৮০০ খ্রিস্টাব্দে শার্লামেনের সম্রাট পদে অভিষেক হওয়ার পর প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। যদিও কেন্দ্রীয় ব্যবস্থার উপরই সমস্ত নিয়ন্ত্রণ বজায় ছিল। শার্লামেনের প্রাদেশিক ব্যবস্থা পরিচালিত হয়েছিল আখেন থেকে। যা ফরাসী ভাষায় Aix-la- Chapelle এবং ইতালীয় ভাষায় Apugnan নামে পরিচিত ছিল।
  • (৩) ৭৮৮ খ্রিস্টাব্দে তিনি রাজকীয় প্রাসাদ নির্মাণে মনোযোগী হয়েছিলেন। ৭৯৬ খ্রিস্টাব্দে তিনি আখেন ক্যাথিড্রাল নির্মাণ করেছিলেন। শার্লামেন আখেনে ৮০০-৮১৪ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে থাকাকালীন প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার বিস্তারে মনোযোগী হন।
  • (৪) শার্লামেন তার সাম্রাজ্যকে ৩৫০টি কাউন্টিতে বিভক্ত করেছিলেন। ৩৫০টি কাউন্টিতে তিনি কাউন্টদের নির্বাচিত করেছিলেন, যারা কাউন্টির দায়িত্বে ছিলেন। কাউন্টরা বিচার ও শাসনতান্ত্রিক ক্ষেত্রেও দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। কাউন্টদের উপর দায়িত্ব প্রাপ্ত ছিলেন মিসি ডোসিনিসি।
  • (৫) এক্ষেত্রে চার্চের একজন প্রতিনিধি এবং সম্রাটের একজন প্রতিনিধি বিভিন্ন কাউন্টিতে নিযুক্ত হয়েছিল। প্রত্যেক বছর বিভিন্ন কাউন্টি সম্পর্কে তারা শার্লামেনকে বিভিন্ন বিষয় অর্থাৎ প্রাদেশিক বিষয় সম্পর্কে জানাত। ‘Comes’ বা ল্যাটিনে ‘Count’-রাই ‘County’-র দায়িত্বপ্রাপ্ত থাকায় প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থা তাদের দায়িত্বেই ছিল।
  • (৬) প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার ক্ষেত্রে বিচার ব্যবস্থাও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। প্রাদেশিক বিচারকের দায়িত্বপালন করত স্ক্যাবিনিরা। তারা পেশাগত দিক থেকে আইন বিষয়ে বিশেষজ্ঞের ভূমিকা পালন করেছিলেন। প্রত্যেকটি কাউন্টির সাতজন স্ক্যাবিনিরা সহায়তা করত বিচারব্যবস্থার ক্ষেত্রে। স্ক্যাবিনিরা কাউন্টদের দ্বারা নির্বাচিত হত।
  • (৭) শার্লামেনের শাসনকালে কাউন্টি বা প্রাদেশিক বিচারব্যবস্থাগুলিতে সাতজন ব্যক্তি বা স্ক্যাবিনিকে সারাজীবনের জন্য মনোনীত করা হত। স্ক্যাবিনিরা আইন বিষয়ের বিশেষজ্ঞ হওয়ায় কোনো শাস্তিদানের ক্ষেত্রে অপরাধের গুরুত্ব বিচার করে অভিযুক্তকে শাস্তিপ্রদান করত।
  • (৮) ফ্রান্স সাম্রাজ্যকে শার্লামেন প্রদেশে ভাগ করেছিলেন শাসনব্যবস্থার সুবিধার জন্য। প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার মধ্যে এই বিভাজন বা ভাগ করে দেওয়ার ফলে শার্লামেনের সময়কালে প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থা সুষ্ঠুরূপে গড়ে উঠতে পেরেছিল।

শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থার আইনগত দিক

  • (১) শার্লামেনের সময়কালে লিখিত কোন আইন ছিল না। পুরাতন জার্মান আইনগুলিকেই বহাল রাখা হয়েছিল। এই আইনগুলিকে সংশোধনের মাধ্যমে নতুন রূপ দেওয়া হয়েছিল মাত্র। তবে শার্লামেন কখনোই জার্মান আইনের পুরাতন ভিত্তি বা কাঠামোকে আমূল পরিবর্তন করেছিলেন একথা বলা যায় না।
  • (২) শাসনতান্ত্রিক ক্ষেত্রে বা আইনগত ক্ষেত্রে শার্লামেন অবিস্মরণীয় ভূমিকা রেখেছিলেন। তিনি সাধারণ সভা বা ডায়েটে তাঁর পরিষদ ও পরামর্শদাতাদের নিয়ে যে আইন প্রণয়ন করতেন তা ‘Capitularies’ নামে পরিচিত ছিল। এই আইনগুলি সাম্রাজ্যের প্রত্যেকটি জায়গায় সামাজিক ও ধর্মীয় জীবনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ছিল।
  • (৩) শার্লামেন তার রাজত্বের প্রথমদিকে সাম্রাজ্যের অন্তর্গত এস্টেটগুলির স্টুয়ার্ড বা কর্মচারীদের প্রতি যে শাসন প্রণয়ন করেছিলেন তা ‘Capitulare de Villis’ নামে পরিচিত ছিল। শার্লামেনের শাসনকালে কাউন্টির বিচারালয়গুলিতে গুরুত্বপূর্ণ সাতজন ব্যক্তিকে সারাজীবনের জন্য মনোনীত করা হত। এই ব্যক্তিদের মনোনীত করতেন কাউন্টরা। এই সাতজন ব্যক্তি অপরাধের গুরুত্ব বিচার করে শান্তিদান নির্দিষ্ট করত। এরা “স্ক্যাবিনি” নামে পরিচিত ছিল।

শার্লামেনের সামরিক ব্যবস্থা

  • (১) শার্লামেনের সময়কালে সামরিক ব্যবস্থা সাম্রাজ্যের সব জায়গায় গড়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছিল। শার্লামেন তাঁর সাম্রাজ্যকে বহিরাগতদের আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলেন।
  • (২) তিনি তাঁর সাম্রাজ্যের সীমানার বাইরে সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলিতে এবং সাম্রাজ্যের সমস্ত দিকেই কতকগুলি সুরক্ষিত অঞ্চল গঠন করেছিলেন। এই অঞ্চলগুলি মার্চ বা মার্ক নামে পরিচিত ছিল। মার্চগুলির কয়েকটি উদাহরণ হল ব্যাভেরিয়া রক্ষার জন্য পূর্ব মার্চ, ইতালির জন্য ফ্রিউলি মার্চ, পশ্চিম সীমান্তে ব্রিটানি মার্চ, স্যাক্সনির পূর্বে স্লাভমার্চ, ডেনদের কাছ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ডেনমার্ক প্রভৃতি।
  • (৩) শার্লামেনের সময়কালে মার্চগুলির সামরিক শাসনকর্তাদের মারকুইস বা মার্কগ্রাফ বলা হত। মার্কের অভ্যন্তরীণ শাসন ব্যবস্থা পরিচালিত হত মারকুইসদের দ্বারা। মারকুইসরা তাদের কাজের পরিবর্তে ভূসম্পত্তির মালিকানা ও আদায় করা রাজস্বের কিছু অংশ লাভ করত।

উপসংহার :- George Payne ও Rainsford James শার্লামেনের স্থানীয় শাসনব্যবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেছিলেন “শার্লামেনের সময়কালে স্থানীয় শাসনব্যবস্থা প্রাদেশিক রাজকীয় কর্মচারীদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছিল।”

(FAQ) শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থা সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. শার্লামেনের সাম্রাজ্যের শাসনতান্ত্রিক প্রদেশ গুলির নাম কি ছিল?

কাউন্টি।

২. শার্লামেনের শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সাধারণ সভার অধিবেশন কি নামে পরিচিত ছিল?

‘Fields of May’।

৩. কাউন্টির শাসকদের কি বলা হত?

কাউন্ট।

৪. কাউন্টদের নিয়ন্ত্রণের জন্য শার্লামেন কোন পদের সৃষ্টি করেছিলেন?

মিসি ডোসিনিসি।

৫. মারকুইস বা মার্কগ্ৰাফ কাদের বলা হত?

শার্লামেনের সময়কালে মার্চ বা মার্কগুলির সামরিক শাসনকর্তাদের মারকুইস বা মার্কগ্ৰাফ বলা হত।

অন্যান্য ঐতিহাসিক ঘটনাগুলি

Leave a Comment