আর্যদের ভারতে আগমনের কাল

আর্যদের ভারতে আগমনের কাল প্রসঙ্গে আর্যদের প্রাচীন সাহিত্য, ম্যাক্সম্যুলারের অভিমত, উইন্টারনিৎসের অভিমত, তিলক ও জ্যাকোবির অভিমত, প্রত্ত্বতাত্ত্বিক প্রমান, ঋকবেদের রচনাকাল সম্পর্কে জানবো।

আর্যদের ভারতে আগমনের কাল

বিষয় আর্যদের ভারতে আগমনের কাল
আদি বাসস্থান ইউরোপ
অর্থ সৎ বংশজাত
সভ্যতা বৈদিক সভ্যতা
পূর্ববর্তী সভ্যতা হরপ্পা সভ্যতা
আর্যদের ভারতে আগমনের কাল

ভূমিকা :- সাধারণ ভাবে বলা হয় আর্যদের আক্রমণে হরপ্পা সভ্যতার পতন ঘটে। অবশ্য এই ব্যাপারে যথেষ্ট মতভেদ রয়েছে। তাই আর্যরা ঠিক কখন ভারত -এ এসেছিল তার বলা দুষ্কর। তবে আর্যদের প্রাচীন সাহিত্য ঋকবেদের রচনাকাল জানতে পারলে এই কাজটি সহজ হবে।

আর্যদের প্রাচীন সাহিত্য

  • (১) আর্যদের প্রাচীন সাহিত্যের নাম বেদ। চারটি বেদের মধ্যে ঋক সংহিতা বা ঋকবেদ হল সর্বাপেক্ষা প্রাচীন। কিন্তু বেদ প্রথমে লিখিত আকারে ছিল না। ঋকবেদের স্তোত্রগুলি প্রথমে রচিত হলেও তা লেখা হত না।
  • (২) শ্রুতি বা কানে শুনে স্মৃতি বা আবৃত্তি দ্বারা বহুকাল বংশ-পরম্পরায় ঋকবেদের রচনা মুখে মুখে চলে এসেছিল। পরবর্তীকালে বেদকে লিপিবদ্ধ করা হয়। বেদের স্তোত্র রচনার কাল এবং বৈদিক স্তোত্রগুলিকে লিপিবদ্ধ করার কালের মধ্যে বহু শতাব্দীর ব্যবধান ছিল।

আর্যদের ভারত আগমন কাল জানার উপায়

ঋকবেদের রচনাকাল জানলে আর্যগণের ভারতে আগমনের সময় জানা যায়। কারণ ঋকবেদেই আর্যদের আদি যুগের কথা জানা যায়।

পণ্ডিতদের বিভিন্ন মতামত

ঋকবেদের রচনাকাল সম্পর্কে বিভিন্ন পণ্ডিত বিভিন্ন মত দিয়েছেন। যেমন –

(১) ম্যাক্সম্যুলারের অভিমত

বিখ্যাত জার্মান পণ্ডিত ম্যাক্সম্যুলার এই অভিমত দিয়েছেন যে, ঋকবেদ কোনো একটি নির্দিষ্ট সময়ে রচিত হয় নি। বিভিন্ন সময়ে ঋকবেদের বিভিন্ন অংশ রচিত হয়েছিল। তার মতে ১২০০-১০০০ খ্রিস্টপূর্বের মধ্যে ঋকবেদের প্রধান স্তোত্রগুলি রচিত হয়েছিল। ঋকবেদের শেষের দিকের স্তোত্রগুলি গৌতম বুদ্ধ -এর জন্মের ৫০০ বছর আগে রচিত হয়। যদি বুদ্ধের জন্ম সন ৫৬৭ খ্রিস্টপূর্ব ধরা হয় তবে ৫৬৭-৫০০ অর্থাৎ ১০৬৭ খ্রিস্টপূর্ব বা ১০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে ঋকবেদের শেষ স্তোত্র রচিত হয়েছিল বলা যায়।

(২) উইন্টারনিৎসের মত

অধ্যাপক উইন্টারনিৎসের মতে, ঋকবেদের সংস্কৃতের সঙ্গে প্রাচীন পারসিক ধর্মসাহিত্য জেন্দ আবেস্তার ভাষার অসাধারণ সাদৃশ্য দেখা যায়। সংস্কৃত ও পালির মধ্যে যে পার্থক্য দেখা যায় সংস্কৃত ও প্রাচীন পারসিক বা ইরাণীয় ভাষার মধ্যে পার্থক্য তার অপেক্ষা কম। জেন্দ আবেস্তার কাল জানা গেলে ঋকবেদের কাল জানা যাবে বলে এই পণ্ডিত মত দিয়েছেন।

(৩) তিলক ও জ্যাকোবির অভিমত

আধুনিক ভাষাতাত্ত্বিক পণ্ডিতদের মতে, আবেস্তার গাথাগুলি ১০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে রচিত হয়। এজন্য তিলক গ্রহ-নক্ষত্রের প্রমাণ দিয়েছেন। জ্যাকোবি অবশ্য ঋকবেদের রচনাকালকে ২৫০০ খ্রিস্টপূর্বে নিয়ে যেতে আগ্রহী। কিন্তু তিলক ও জ্যাকোবির এই অর্থে ঋকবেদের রচনাকাল ১০০০খ্রিস্টপূর্ব বলে অনেক পণ্ডিত মনে করেন। এই সন তারিখ ম্যাক্সম্যুলরের নির্ণীত কালের কাছাকাছি। সুতরাং ম্যাক্সম্যুলারের মতের সারবত্তা এর দ্বারা প্রমাণিত হয়।

প্রত্নতাত্ত্বিক প্রমাণ

বোঘাজকোই ও তেল-এল-আমানা শিলালিপি দুটি আবিষ্কৃত হওয়ার পর দেখা যায় যে, এতে বৈদিক দেবতা ইন্দ্র, মিত্র, বরুণ, প্রমুখের নাম আছে। তেল-এল-আমানা লিপিতে সিরিয়ার রাজাদের নামকরণে সংস্কৃত ভাষার প্রভাব দেখা যায়। এই লিপির কাল হল ১৪০০ খ্রিস্টপূর্ব। এই শিলালিপির প্রমাণ থেকে ধরা হয় ঋকবেদের রচনা কাল অন্ততঃপক্ষে ১৪০০ খ্রিস্টপূর্ব ছিল।

ঋকবেদের রচনাকাল

উপরোক্ত প্রমাণগুলির সাহায্যে ঋকবেদের রচনাকাল ১৪০০ – ১০০০ খ্রিস্টপূর্ব ধরা হয়। আর্যগণ ১৪০০ বা ১৫০০ খ্রিস্টপূর্ব নাগাদ ভারতে আসে। বাল গঙ্গাধর তিলক প্রভৃতি পণ্ডিতেরা ঋগ্বেদের রচনা কাল ৬০০০ খ্রিস্ট পূর্ব বলে দাবী করেন। উইন্টারনিৎস গ্রহ-নক্ষত্রের প্রমাণের ওপর নির্ভর করা উচিত নয় মনে করেন।

উপসংহার :- সুতরাং ঋকবেদের রচনা কাল ১৫০০ বা ১৪০০-১০০০ খ্রিস্টপূর্ব বলে ধরা নেওয়া যায়। আর ঋকবেদ রচনার সূচনাকালে আর্যরা ভারতে এসে উপস্থিত হয়। কিন্তু এই মতের স্বপক্ষে কোনো নির্ভরযোগ্য প্রমাণ নেই।

(FAQ) আর্যদের ভারতে আগমনের কাল সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. আর্য শব্দের সংস্কৃতি অর্থ কী?

সৎ বংশ জাত।

২. ভারতবর্ষে আর্য কথাটি কি অর্থে ব্যবহৃত হয়?

জাতিবাচক অর্থে।

৩. আর্য কোন ভাষার নাম?

প্রাচীন ইন্দো-ইউরোপীয়।

৪. বৈদিক সভ্যতা কারা গড়ে তোলে?

আর্যরা।

৫. আর্যরা কখন ভারতে আসে?

আনুমানিক ১৫০০ খ্রিস্টপূর্বে।

Leave a Reply

Translate »