স্লোভাকিয়া

স্লোভাকিয়া দেশটি প্রসঙ্গে সীমা, রাজধানী, প্রাচীন শহর, আয়তন ও জনসংখ্যা, হাঙ্গেরির অংশ, চেকোস্লোভাকিয়া গঠন, স্বাধীনতা ঘোষণা, চেকোস্লোভাকিয়ার বিভাজন, অর্থনৈতিক দিক, ভৌগোলিক দিক ও রাজনৈতিক দিক সম্পর্কে জানবো।

স্লোভাকিয়া

দেশস্লোভাকিয়া
উত্থান১ জানুয়ারি, ১৯৯৩ খ্রি
রাজধানীব্রাতিস্লাভা
ভাষাস্লোভাক
রাষ্ট্রপতিসুজানা চাপুটোভা
প্রধানমন্ত্রীএডুয়ার্ড হেগের
স্লোভাকিয়া

ভূমিকা :- মধ্য ইউরোপ -এর একটি স্থলবেষ্টিত প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র হল স্লোভাকিয়া। ১৯৯৩ সালের ১ লা জানুয়ারি পূর্বের রাষ্ট্র চেকোস্লোভাকিয়া ভেঙ্গে চেক প্রজাতন্ত্র ও স্লোভাকিয়া দেশ দুটি সৃষ্টি হয়।

স্লোভাকিয়ার সীমা

স্লোভাকিয়া রাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমে চেক প্রজাতন্ত্র, উত্তরে পোল্যান্ড, পূর্বে ইউক্রেন, দক্ষিণে হাঙ্গেরি এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে অস্ট্রিয়া

স্লোভাকিয়ার রাজধানী

স্লোভাকিয়া দেশটির রাজধানী ও বৃহত্তম শহর ব্রাতিস্লাভা। এই শহর থেকে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা শহরের দূরত্ব মাত্র ৬০ কিলোমিটার।

স্লোভাকিয়া দেশের প্রাচীন শহর

স্লোভাকিয়ার মধ্যযুগের একটি প্রাচীন শহর হল লেভোকা। বিশ্বের বৃহত্তম কন্ঠ বেদীর জন্য দেশটি বিখ্যাত। এই বেদীটি নির্মাণ করেন শিল্পী পারুল। ১৮ মিটারের বেশি উঁচু ও ৬ মিটার প্রস্থ বিশিষ্ট এই বেদী নির্মানে একটি পেরেকও ব্যবহার করা হয় নি।

স্লোভাকিয়া রাষ্ট্রের আয়তন ও জনসংখ্যা

দেশটির আয়তন ৪৯ হাজার বর্গকিমি। তবে দেশটির কোনো জলীয় অংশ নেই বললেই চলে। স্লোভাকিয়া দেশটির জনসংখ্যা ৫৪ লক্ষের কিছু বেশি। প্রতি বর্গকিমিতে জনসংখ্যার ঘনত্ব ১১১ জন।

হাঙ্গেরির অংশ স্লোভাকিয়া

দশম শতাব্দী থেকে ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত স্লোভাকিয়া হাঙ্গেরির অংশ ছিল।

চেকোস্লোভাকিয়া গঠন

১৯১৮ সালে স্লোভাকিয়া, চেক অঞ্চল বোহেমিয়া ও মোরাভিয়ার সাথে মিলিত হয়ে এবং সাইলেসিয়ার একটি ক্ষুদ্র অংশ নিয়ে চেকোস্লোভাকিয়া গঠন করে।

চেকোস্লোভাকিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা

১৯৩৯ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর কিছুদিন পূর্বে জার্মানির স্বৈরশাসক আডলফ হিটলারের চাপে দেশটি স্বাধীনতা ঘোষণা করে।

চেকোস্লোভাকিয়ার বিভাজন

১৯৪৫ সালে স্লোভাকিয়া পুনরায় চেকোস্লোভাকিয়ার সাথে মিলিত হয়। ১৯৪৮ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত চেকোস্লোভাকিয়ার ক্ষমতায় আসীন ছিল সোভিয়েত-ধাঁচের সাম্যবাদী সরকার। ১৯৯৩ সালের জানুয়ারি মাসে দেশটি চেক প্রজাতন্ত্র ও স্লোভাকিয়ায় বিভক্ত হয়ে যায়।

স্লোভাকিয়া দেশটির ভৌগোলিক দিক

দেশটির আয়তন ৪৯ হাজার বর্গকিলোমাটার। স্লোভাকিয়া দেশটি স্থলবিশিষ্ট, যার অর্থ কোনো বড় জলাভূমি বা সমুদ্রসীমা নেই।

স্লোভাকিয়া দেশের অর্থনৈতিক দিক

স্লোভাকিয়া দেশটির অর্থনীতি ব্যবস্থা পর্যটনের ওপরে নির্ভরশীল। এছাড়া বিভিন্ন শিল্পকারখানা সামগ্রী রপ্তানি প্রধান আয়ের উৎস।

স্লোভাকিয়া দেশটির রাজনৈতিক দিক

  • (১) একটি সংসদীয় প্রতিনিধিত্বমূলক বহুদলীয় গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কাঠামোয় স্লোভাকিয়া দেশটির রাজনীতি সংঘটিত হয়। রাষ্ট্রের প্রধান হলেন রাষ্ট্রপতি। প্রধানমন্ত্রী হলেন সরকারের প্রধান।
  • (২) সরকারের উপর রাষ্ট্রের নির্বাহী ক্ষমতা ন্যস্ত আছে। আইনসভার উপর আইন প্রণয়নের ক্ষমতা ন্যস্ত আছে। বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ ও আইনসভা থেকে স্বাধীন।

উপসংহার :- বিশ্বের লোক স্থাপত্যবিদ্যার প্রথম সংরক্ষণ রয়েছে স্লোভাকিয়ায়। এটি দেখার জন্য স্লোভাকিয়া ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই।

(FAQ) স্লোভাকিয়া দেশটি সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. কোন দেশ বিলুপ্ত হয়ে স্লোভাকিয়া দেশটির জন্ম হয়?

চেকোস্লোভাকিয়া।

২. স্লোভাকিয়া দেশটির জন্ম হয় কখন?

১ জানুয়ারি ১৯৯৩ সালে।

৩. স্লোভাকিয়া দেশটির রাজধানীর নাম কি?

ব্রাতিস্লাভা।

৪. স্লোভাকিয়া দেশটির প্রচলিত ভাষা কি?

স্লোভাক।

৫. স্লোভাকিয়ার বর্তমান রাষ্ট্রপতি কে?

সুজানা চাপুটোভা।

৬. স্লোভাকিয়ার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী কে?

এডুয়ার্ড হেগের।

Leave a Comment