ভারতের উপরাষ্ট্রপতি

ভারতের উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর যোগ্যতা, নির্বাচন, নির্বাচনী সংস্থা, মেয়াদ, শপথ বাক্য পাঠ, অপসারণ ও ইমপিচমেন্ট, বেতন ও ভাতা, সর্বপ্রধান কাজ, রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন, পদত্যাগ পত্র, ক্ষমতা ও কার্যাবলী ও স্বাধীন ভারতের উপরাষ্ট্রপতিগণ সম্পর্কে জানবো।

ভারতের উপরাষ্ট্রপতি

বাসভবনভাইস প্রেসিডেন্ট হাউস, নয়া দিল্লি, ভারত
নিয়োগকর্তাইলেক্টোরাল কলেজ অফ ইন্ডিয়া
মেয়াদকালপাঁচ বছর (নবায়নযোগ্য)
গঠন১৩ মে, ১৯৫২ খ্রিস্টাব্দ
ভারতের উপরাষ্ট্রপতি

ভূমিকা :- ভারতের সংবিধান অনুসারে ভারতের ক্ষমতার দ্বিতীয় প্রধান ব্যক্তি হলেন ভারতের উপরাষ্ট্রপতি। তিনি পদাধিকার বলে ভারতের রাজ্যসভার চেয়ারম্যান।

ভারতের প্রথম ও বর্তমান উপরাষ্ট্রপতি

ভারতের প্রথম উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন বিশিষ্ট দার্শনিক সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণন। ভারতের বর্তমান উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু৷

উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর যোগ্যতা

ভারতের উপরাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী হতে হলে প্রার্থীকে অবশ্যই

  • (১) ভারতীয় নাগরিক হতে হবে।
  • (২) ৩৫ বছর বয়স হতে হবে।
  • (৩) রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত হবার যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে।
  • (৪) উপরাষ্ট্রপতি সংসদ -এর কোনো কক্ষের বা রাজ্য আইনসভার কোনো কক্ষের সদস্য থাকতে পারেন না।
  • (৫) কোনও সরকারি বা বেসরকারি পদে অথবা অর্থ প্রাপ্তি হয় এমন কোনোও পদে নিযুক্ত থাকতে পারবেন না।
  • (৬) বর্তমান আইন অনুযায়ী উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে পদপ্রার্থীর নাম কমপক্ষে ৫ জন প্রস্তাবক এবং ৫ জন সমর্থক দ্বারা সমর্থিত হতে হবে।
  • (৭) তা ছাড়া উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর মনােনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় ১৫,০০০ টাকা জামানত হিসেবে জমা রাখতে হয়।

নির্বাচন

সংসদের দুই কক্ষ লোকসভা এবং রাজ্যসভার নির্বাচিত সদস্যদের দ্বারা নির্বাচিত হন ভারতের উপরাষ্ট্রপতি।

নির্বাচনী সংস্থা

সংসদের উভয় কক্ষের সদস্যদের নিয়ে একটি নির্বাচনী সংস্থা গঠিত হয়। ঐ নির্বাচনী সংস্থা দ্বারা সমানুপাতিক প্রতনিধিত্বের একক হস্তান্তরযোগ্য ভোটে এবং গোপন ভোটপত্রের মাধ্যমে তিনি নির্বাচিত হন।

মেয়াদ

ভারতের উপরাষ্ট্রপতির কার্যকালের মেয়াদ পাঁচ বছর। উপরাষ্ট্রপতির পুনর্নির্বাচনের বিষয়ে ভারতীয় সংবিধানে কিছু উল্লেখ করা হয় নি।

শপথ বাক্য পাঠ

ভারতের উপরাষ্ট্রপতিকে শপথ বাক্য পাঠ করান ভারতের রাষ্ট্রপতি

অপসারণ ও ইমপিচম্যান্ট

  • (১) রাষ্টপতির মতো উপরাষ্ট্রপতিকেও অসাংবিধানিক আচরণের জন্য অপসারণ করা যেতে পারে।
  • (২) ইমপিচমেন্ট পদ্ধতিও রাষ্ট্রপতি ও উপরাষ্ট্রপতির ক্ষেত্রে একই রকম। কিন্তু উপরাষ্ট্রপতিকে ইমপিচমেন্ট এর প্রস্তাব কেবলমাত্র রাজ্যসভায় উত্থাপন করা যায়।
  • (৩) প্রস্তাবটি যদি সংসদের উচ্চ এবং নিম্ন উভয় কক্ষেই দুই-তৃতীয়াংশ সাংসদ দ্বারা সমর্থিত হয় তাহলে উপরাষ্ট্রপতি বরখাস্ত হবেন ।
  • (৪) আজ পর্যন্ত ভারতের কোনো উপরাষ্ট্রপতির বিরুদ্ধেই ইমপিচমেন্টের প্রস্তাব উত্থাপিত হয়নি।

বেতন ও ভাতা

উপরাষ্ট্রপতি বর্তমানে ৪,০০,০০০ টাকা বেতন ও ভাতা পান।

সর্বপ্রধান কাজ

সংবিধানের ৬৪ নং ধারা অনুযায়ী রাজ্যসভায় সভাপতিত্ব করাই হল ভারতের উপরাষ্ট্রপতির সর্বপ্রধান কাজ।

রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন

রাষ্ট্রপতি যদি পদত্যাগ করেন বা অসুস্থতাজনিত কারণে অনুপস্থিত থাকেন অথবা মারা যান তখন উপরাষ্ট্রপতি কার্যনির্বাহী রাষ্ট্রপতি রূপে রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন।

রাষ্ট্রপতির পদে সময়কাল

রাষ্ট্রপতির পদ শূন্য হলে ছয় মাসের মধ্যে নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করতে হয়। উপরাষ্ট্রপতি সর্বাধিক ছয় মাস সময়কাল রাষ্ট্রপতির স্থলাভিষিক্ত থাকতে পারেন।

পদত্যাগ পত্র

উপরাষ্ট্রপতি যদি কোনও কারণে পদত্যাগ করতে চান তাহলে তাকে পদত্যাগ পত্র জমা দিতে হবে ভারতের রাষ্ট্রপতি কাছে।

শূন্যপদ পূরণ

ভারতীয় সংবিধানে বলা হয়েছে, যদি কোনো কারণে উপরাষ্ট্রপতি পদ শূন্য হয়ে পড়ে তাহলে একটি যুক্তিসম্মত সময়সীমার মধ্যে সেই শূন্যপদ পূরণ করতে হবে। তবে এই সময়সীমার ন্যূনতম অথবা সর্বাধিক কত দিন হতে পারে সে সম্পর্কে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি ভারতীয় সংবিধানে ।

ক্ষমতা ও কার্যাবলী

উপরাষ্ট্রপতি হলেন পদাধিকারবলে রাজ্যসভার সভাপতি এবং রাজ্যসভা পরিচালনার দায়দায়িত্ব তার উপরেই ন্যস্ত থাকে।

  • (১) সংবিধানের ৬৪নং ধারা অনুযায়ী রাজ্যসভায় সভাপতিত্ব করাই উপরাষ্ট্রপতির সর্বপ্রধান কাজ।
  • (২) মৃত্যু, পদত্যাগ, অপসারণ বা অন্য কোনাে কারণে রাষ্ট্রপতির আসন শূন্য হলে অস্থায়ীভাবে উপরাষ্ট্রপতি সেই দায়িত্ব পালন করেন। কার্যনির্বাহী রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পেলে উপরাষ্ট্রপতি তখন রাষ্ট্রপতির মতো সকল সুযােগসুবিধা ভােগ করেন।
  • (৩) অসুস্থতা, বিদেশ ভ্রমণ অথবা অন্যকোনাে কারণে রাষ্ট্রপতি যদি সাময়িকভাবে অনুপস্থিত থাকেন সেক্ষেত্রেও উপরাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রপতির কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। ১৯৮২ খ্রিস্টাব্দে জ্ঞানী জৈল সিং অসুস্থ হয়ে আমেরিকায় চিকিৎসার জন্য গেলে উপরাষ্ট্রপতি হিদায়েতুল্লা অ্যাক্টিং প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন।
  • (৪) উপরাষ্ট্রপতি যখন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হিসেবে তার ভূমিকা পালন করেন তখন কিন্তু তিনি রাজ্যসভার সভাপতি বা চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে সক্ষম হন না।
  • (৫) ভারতের সংসদীয় শাসন ব্যবস্থায় উপরাষ্ট্রপতির ভূমিকা দুটি ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ থাকে। রাজ্যসভার চেয়ারম্যান হিসেবে তাঁর ভূমিকা পালন এবং অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হিসেবে সংসদে দায়িত্ব পালন।

স্বাধীন ভারতের উপরাষ্ট্রপতিগন

  • (১) ডাক্তার সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণণ :- স্বাধীন ভারতের প্রথম উপরাষ্ট্রপতি যিনি দুটি র্টাম উপরাষ্ট্রপতি পদ অলংকৃত করেছেন। তিনিই প্রথম উপরাষ্ট্রপতি যিনি পরবর্তীকালে রাষ্ট্রপতি পদ অলংকৃত করেন।
  • (২) ডাক্তার জাকির হোসেন :- স্বাধীন ভারতের প্রথম মুসলিম উপরাষ্ট্রপতি।
  • (৩) ভি.ভি গীরি :- ভারতের একমাত্র উপরাষ্ট্রপতি, যিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য উপরাষ্ট্রপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন ।
  • (৪) ভি.ভি গীরি –  ভারতের প্রথম উপরাষ্ট্রপতি যিনি পরবর্তীকালে অস্থায়ী, কার্যনির্বাহী, অনির্বাচিত রাষ্ট্রপতির পদ অলংকৃত করেন। পরে তিনি রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচিত হন।
  • (৫) মোহাম্মদ হিদায়াতুল্লাহ, ভি .ভি গীরি এবং বি.ডি জাত্তি :- এরা তিনজনই পরবর্তীকালে অস্থায়ী, কার্যনির্বাহী রাষ্ট্রপতি পদ অলংকৃত করেছিলেন।
  • (৬) মোহাম্মদ হিদায়াতুল্লাহ এবং বি.ডি জাত্তি :- এই দুজন উপরাষ্ট্রপতি পরবর্তীকালে অস্থায়ী, কার্যনির্বাহী, অনির্বাচিত রাষ্ট্রপতির পদ অলংকৃত করেছিলেন কিন্তু পরে রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচিত হননি।
  • (৭) ডঃ সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণাণ, ডক্টর জাকির হোসেন, ভি.ভি গীরি, আর. ভেঙ্কটরমন, ডক্টর শংকর দায়াল শর্মা এবং কে. আর নারায়ন   –  এরা প্রত্যেকেই উপরাষ্ট্রপতি এবং রাষ্ট্রপতি উভয় পদে নির্বাচিত হয়েছেন।
  • (৮) জিএস পাঠক, কৃষ্ণকান্ত, ভৈরোঁ সিং, শেখাওয়াত এবং মহাম্মদ হামিদ আনসারি –  এরা প্রত্যেকেই উপরাষ্ট্রপতি রূপে নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু অস্থায়ী অথবা নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি পদ অলংকৃত করেন নি।
  • (৯)কে . আর নারায়ন  হলেন স্বাধীন ভারতের প্রথম দলিত উপরাষ্ট্রপতি।
  • (১০) ভারতের বর্তমান উপরাষ্ট্রপতি হলেন ভেঙ্কাইয়া নাইডু।

মূল্যায়ন

উপরাষ্ট্রপতি পদ আলঙ্কারিক পদ সে বিষয়ে কোনাে সন্দেহ নেই। আগে পদমর্যাদার তালিকায় রাষ্ট্রপতির স্থান তৃতীয় হলেও, বর্তমানে তত্ত্বগতভাবে ভারত -এর উপরাষ্ট্রপতি দ্বিতীয় পদমর্যাদাসম্পন্ন ব্যক্তি। যেমন- বর্তমানে ভেঙ্কাইয়া নাইডু ৫১৬ টি ভােট পেয়ে উপরাষ্ট্রপতি পদে নিযুক্ত হয়েছেন।

উপসংহার :- উপরাষ্ট্রপতি পদের পদমর্যাদা অনেকটা নির্ভরশীল পদাধিকারীর ব্যক্তিত্ব, ব্যক্তিগত যােগ্যতা, দক্ষতা, কর্মকুশলতা, দূরদর্শিতা প্রভৃতির উপর। পাইলির মতানুসারে, সম্মান ও মর্যাদাগত বিচারে ভারতের উপরাষ্ট্রপতির পদ মােটামুটি গুরুত্বপূর্ণ (“..the office of the Vice President has been one of great dignity and prestige.”)

(FAQ) ভারতের উপরাষ্ট্রপতি সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. উপরাষ্ট্রপতি পদাধিকার বলে সভাপতিত্ব করেন কোথায়?

রাজ্যসভায়।

২. উপরাষ্ট্রপতি হবার জন্য প্রয়োজনীয় নূন্যতম বয়স কত?

৩৫ বছর।

৩. ভারতের উপরাষ্ট্রপতি কে শপথ বাক্য পাঠ করান কে? – রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি।

৪. উপরাষ্ট্রপতি কে পদচ্যুত করার জন্য কতদিন পূর্বে নােটিশ দিতে হয়?

১৪ দিন।

৫. ভারতের বর্তমান উপরাষ্ট্রপতি নাম কী?

ভেঙ্কাইয়া নাইডু।

Leave a Reply

Translate »