বিংশ শতকে ভারতের কৃষকদের ভূমিকা

বিংশ শতকে ভারতের কৃষকদের ভূমিকা প্রসঙ্গে কৃষকের জীবিকা, বিপ্লবের সহায়ক বাহিনী কৃষক সমাজ, বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক বিপ্লবে কৃষক সম্প্রদায়, শ্রমিক শ্রেণির সহযোগী, ভারতেও শ্রমিক শ্রেণির সহায়ক কৃষক শ্রেণি, ভারতের প্রাক বিপ্লব যুগের অবসান, কৃষক-সম্প্রদায়ের ঐতিহাসিক ভূমিকা ও কৃষক সম্প্রদায়ের সশস্ত্র সংগ্ৰাম সম্পর্কে জানবো।

বিংশ শতকে ভারতের কৃষকদের ভূমিকা

ঐতিহাসিক ঘটনাবিংশ শতকে কৃষকের ভূমিকা
মধ্যশ্রেণির নিম্নস্তরকৃষক
সামন্ততন্ত্রের ধ্বংসশ্রমিক শ্রেণি
সাম্রাজ্যবাদী যুগবিংশ শতক
বিংশ শতকে ভারতের কৃষকদের ভূমিকা

ভূমিকা :- কৃষক হল বহু স্তরে বিভক্ত, ব্যক্তিগত সম্পত্তির বন্ধনে আবদ্ধ, ক্ষুদ্র শোষক-শোষিতদের নিয়ে গঠিত এবং মধ্যশ্রেণীর নিম্নতম স্তরে অবস্থিত একটি সম্প্রদায় মাত্র।

কৃষকের জীবিকা

কৃষি মানব সমাজের প্রথম ও মূল উৎপাদন ব্যবস্থা হলেও তা অতি নিম্নস্তরের উৎপাদন-ব্যবস্থা। আর নিম্নস্তরের উৎপাদন-ব্যবস্থাই কৃষকের জীবিকা ও জীবনের ভিত্তি। এই প্রকার একটি অনুন্নত উৎপাদন-ব্যবস্থার ভিত্তিতে গঠিত কোনো সম্প্রদায় স্বভাবতই একটি বিপ্লবী শ্রেণী হতে পারে না, কিংবা স্বাধীনভাবে কোনো বিপ্লব সম্পন্ন করতেও পারে না।

বিপ্লবের সহায়ক বাহিনী কৃষক সমাজ

সামন্ততান্ত্রিক শোষণ-ব্যবস্থার জালে আবদ্ধ কৃষক-সম্প্রদায় কোনো বিপ্লবী শ্রেণী দ্বারা চালিত হলেই বিপ্লবের একটি সহায়ক বাহিনীতে (Reserve force) পরিণত হতে পারে। ইতিহাসে কৃষক-সম্প্রদায় চিরকালই কোনো উন্নত, বিপ্লবী শ্রেণী দ্বারা সংগঠিত ও চালিত হয়ে বিপ্লবের বাহিনী রূপে তাদের ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করে এসেছে, কোনো স্বাধীন বিপ্লবী শ্রেণীরূপে নয়।

বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক বিপ্লবে কৃষক সম্প্রদায়

অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষভাগ থেকে ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধ পর্যন্ত ইউরোপের বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক বিপ্লবে কৃষক সম্প্রদায় তৎকালের বিপ্লবী বুর্জোয়াশ্রেণী দ্বারা চালিত হয়েই ঐ বিপ্লবের বাহিনীরূপে কাজ করেছে এবং সামন্ততান্ত্রিক শোষণ থেকে মুক্তিলাভ করে পুনরায় একচেটিয়া ধনতন্ত্রের শোষণের জালে আবদ্ধ হয়েছে।

কৃষকের সহযোগী শ্রমিক শ্রেণি

  • (১) সাম্রাজ্যবাদী যুগে সামন্ততন্ত্রকে ধ্বংস না করে বুর্জোয়াশ্রেণী তাকে শোষণের সহযোগী করেছে। তাই এই সাম্রাজ্যবাদী যুগে বুর্জোয়াশ্রেণীর আর কোনো বিপ্লবী ভূমিকা নেই। সুতরাং সমাজ-বিকাশের পথ বাধামুক্ত করবার উদ্দেশ্যে শ্রমিকশ্রেণীই এই যুগে কৃষকের সহযোগিতায় গণতান্ত্রিক বিপ্লবের দ্বারা সামন্ততন্ত্রকে ধ্বংস করে কৃষককে শোষণ থেকে মুক্ত করে, সমাজতন্ত্রের পথ প্রস্তুত করে।
  • (২) তাই গণতান্ত্রিক বিপ্লব সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছে। বিংশ শতাব্দীর এই সাম্রাজ্যবাদী যুগ তাই গণতান্ত্রিক বিপ্লব ও সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের যুগ রূপে দেখা দিয়েছে। এই বৈপ্লবিক যুগে কৃষক সম্প্রদায় বিপ্লবী শ্রমিকশ্রেণী দ্বারা সংগঠিত ও চালিত হয়ে এবং শ্রমিকশ্রেণীর প্রধান সহায়ক বাহিনীরূপে গণতান্ত্রিক বিপ্লবে অংশ গ্রহণ করে সমাজতন্ত্রের পথে পূর্ণমুক্তি লাভ করছে।

ভারতেও শ্রমিক শ্রেণির সহায়ক কৃষক শ্রেণি

  • (১) সাম্রাজ্যবাদ-একচেটিয়া মূলধনী-সামন্ততন্ত্র শাসিত ভারতেও সামন্ততান্ত্রিক শোষণের জালে আবদ্ধ কৃষক সম্প্রদায় এখন শ্রমিকশ্রেণী দ্বারা সংগঠিত ও চালিত হয়েই প্রধান বাহিনীরূপে গণতান্ত্রিক বিপ্লবে অংশ গ্রহণ করবে – স্বাধীন বিপ্লবী শক্তিরূপে নয়।
  • (২) ভারতের বুর্জোয়াশ্রেণীর প্রধান অংশ যেহেতু সাম্রাজ্যবাদ ও সামন্ততন্ত্রের সহযোগী, সেহেতু তারা বিপ্লব-বিরোধী। সুতরাং ভারতের শ্রমিকশ্রেণীই কৃষক-সম্প্রদায়কে বিপ্লবের প্রধান বাহিনীরূপে সংগঠিত ও পরিচালিত করে গণতান্ত্রিক বিপ্লব সম্পন্ন করতে পারে। ভারতের গণতান্ত্রিক বিপ্লবে শ্রমিকশ্রেণীই হবে কৃষকের পরিচালক।

ভারতের প্রাক্-বিপ্লব যুগের অবসান

ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগ হতে ক্রমবর্ধমান শিল্পের মারফত বিংশ শতাব্দীর বিপ্লবের নায়ক শ্রমিকশ্রেণীর আবির্ভাব এবং বিংশ শতাব্দীর প্রথম হতে সংগ্রামের ক্ষেত্রে তার প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে ভারতের প্রাক্-বিপ্লব যুগের অবসান ঘটেছে। গণতান্ত্রিক বিপ্লব ও সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের যুগের উদ্বোধন হয়েছে।

নেতৃত্বহীন কৃষক বিদ্রোহ

পূর্বেই বলা হয়েছে যে, ঊনবিংশ শতাব্দীর কৃষক বিদ্রোহগুলি নেতৃত্বহীন, বৈপ্লবিক আদর্শ ও লক্ষ্যহীন ছিল বলে সেইগুলি বৈপ্লবিক সংগ্রামের স্তরে আরোহণ করতে পারে নি। তা এই বিদ্রোহগুলির পক্ষে কোনো প্রকারেই সম্ভব ছিল না।

কৃষক-সম্প্রদায়ের ঐতিহাসিক ভূমিকা

তথাপি একথা অনস্বীকার্য যে, অন্ধভাবে হলেও সাম্রাজ্যবাদ-সামন্ততন্ত্রের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে কৃষক-সম্প্রদায় এক বিপুল তাৎপর্য ও গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছে।

সংগ্রামী কৃষকের ঐতিহাসিক কর্তব্য

বিংশ শতাব্দীর বৈপ্লবিক সংগ্রামের স্রষ্টা ও নায়ক শ্রমিকশ্রেণী কৃষকেরই সন্তান। এই সন্তানের বৈপ্লবিক ভূমিকা পালনের পথ সুগম করে দেওয়াই ছিল ঊনবিংশ শতাব্দীর সংগ্রামী কৃষকের ঐতিহাসিক কর্তব্য।

কৃষক সম্প্রদায়ের সশস্ত্র সংগ্ৰাম

কৃষক সম্প্রদায় তাদের সশস্ত্র সংগ্রামের দ্বারা এক মহান সংগ্রামী ও গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য সৃষ্টি করে শ্রমিকশ্রেণীর সংগ্রামের পথ, গণ-সংগ্রামে তার বৈপ্লবিক নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করে দিয়েছে ৷

উপসংহার:- ঊনবিংশ শতাব্দী থেকে কৃষক-সম্প্রদায় অন্ধভাবে যে সাম্রাজ্যবাদ-সামন্ততন্ত্র বিরোধী সংগ্রাম চালিয়ে এসেছে, শ্রমিকশ্রেণী সচেতনভাবে তার নেতৃত্ব ও বৈপ্লবিক আদর্শ দ্বারা কৃষক ও অন্যান্য সংগ্রামী শ্রেণীর সহায়তায় সেই সংগ্রামকেই আরও উন্নত স্তরে নিয়ে গিয়ে গণতান্ত্রিক বিপ্লব সম্পন্ন করবে এবং জনসাধারণকে নিয়ে সমাজতন্ত্রের পথে যাত্রা করবে – এটাই ইতিহাসের নির্দেশ।

(FAQ) বিংশ শতকে ভারতের কৃষকদের ভূমিকা সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. মানব সমাজের প্রথম ও মূল উৎপাদন ব্যবস্থা কি ছিল?

কৃষি।

২. বৈপ্লবিক সংগ্ৰামের স্রষ্টা ও নায়ক কারা?

শ্রমিক শ্রেণি।

৩. বিংশ শতকের সাম্রাজ্যবাদী যুগ কিসে পরিণত হয়েছে?

গণতান্ত্রিক ও সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের যুগ।

Leave a Comment