প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ

প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ প্রসঙ্গে প্রাচীন গ্ৰিসে দেবতাদের সৃষ্টি, প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদী ধর্মের উদ্ভব, প্রাচীন গ্রিসের বিভিন্ন দেবদেবী, প্রাচীন গ্ৰিসে বারো অলিম্পিয়ান বহির্ভূত দেবদেবী, গ্ৰিক পলিসের বিভিন্ন দেবদেবী সম্পর্কে জানবো।

প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ

ঐতিহাসিক ঘটনাপ্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ
দেবরাজজিউস
স্বর্গের রানিহেরা
উর্বরতার দেবীডিমিটার
প্রেমের দেবীআফ্রেডিটি
যুদ্ধ ও চারুশিল্পের দেবীএথেনা
অরণ্যের দেবীআরমিটিস
সুরার দেবতাডায়োনিসাস
প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ

ভূমিকা :- প্রাচীন গ্রিসের বিভিন্ন উপকথাতে বহু দেবতার অস্তিত্বে বিশ্বাসের প্রমাণ রয়েছে। গ্ৰিসবাসী মনে করতেন দেবতারা প্রায়শই মানুষের শারীরিক চেহারায় আবির্ভূত হয়ে প্রত্যক্ষভাবে মানুষের কাজকর্মে হস্তক্ষেপ করেন।

প্রাচীন গ্ৰিসে দেবতাদের সৃষ্টি

প্রাচীন গ্রিসে বহুদেবতার সৃষ্টির পটভূমি হিসাবে কয়েকটি বিষয় কাজ করেছিল। যেমন –

(১) প্রাকৃতিক শক্তিকে ভয়

গ্রিসের অন্যতম নগর-রাষ্ট্র এথেন্সের বাসিন্দাদের ‘খুবই ঈশ্বরভীত’ (Very God Fearing) জাতি বলে সেন্ট পল উল্লেখ করেছেন। প্রকৃতির বিভিন্ন বিষয়ে ভয়ভীতি থেকেই প্রাচীন গ্রিকরা অসংখ্য দেবদেবীর কল্পনা ও উপাসনা শুরু করেছিল। তাই প্রাচীন গ্রিকদের ধর্ম-ভাবনায় বহু দেবতার আরাধনা অর্থাৎ বহুত্ববাদী ধারণার অস্তিত্ব লক্ষ্য করা যায়।

(২) কবি, শিল্পী ও দার্শনিকদের ভাবনা

অধ্যাপক সি. এম. বাওরা (C. M. Bowra) প্রাচীন গ্রিসের ধর্মকে সব ধরনের নিয়মনীতির বেড়াজালমুক্ত বলে উল্লেখ করেছেন। এই ধর্মের বিকাশে কোনো অবতার, পুরোহিত বা সংসারের বন্ধনমুক্ত যুগপুরুষের ভূমিকা ছিল না। গ্রিসের প্রাচীন কবি, শিল্পী ও দার্শনিকরা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন দেবতার কল্পনা করেছেন। এই ভাবে তাদের চিন্তাভাবনা থেকেই গ্রিক ধর্মের ও তাদের বিভিন্ন দেবতার সৃষ্টি হয়েছে।

প্রাচীন গ্ৰিসে বহুত্ববাদী ধর্মের উদ্ভব

গ্রিসে বহুত্ববাদী ধর্মের উদ্ভবের বিভিন্ন দিক গুলি হল –

(১) উপজাতীয় ও রাজনৈতিক স্বাতন্ত্র্য

ইতিহাসবিদ উইল ডুরান্ট মন্তব্য করেছেন যে, গ্রিকদের উপজাতীয় ও রাজনৈতিক স্বাতন্ত্র্য বা বিভেদ কামিতা তাদের ধর্মকে অনিবার্যভাবে বহুত্ববাদী করে তুলেছিল। গ্রিকরা প্রথম থেকেই বহুদেবতার উপাসনায় বিশ্বাসী ছিল। গ্রিসের বিভিন্ন দেবদেবীকে নিয়ে তাদের দেবমণ্ডলী (Pantheon) গড়ে উঠেছিল। গ্রিক কবি-দার্শনিকরাও তাদের কল্পনা থেকে নিত্যনতুন দেবতার সৃষ্টি করতেন। প্রথমদিকে গ্রিসের প্রতিটি পরিবারে নিজস্ব দেবতার পূজার প্রচলন ছিল। পরবর্তীকালে এই সকল দেবদেবী সেখানকার পারিবারিক গণ্ডি পেরিয়ে গ্রিক নগর-রাষ্ট্রগুলির দেবদেবীতে পরিণত হন।

(২) নগর-দেবতা

প্রতিটি নগর রাষ্ট্রের সুরক্ষার জন্য পৃথক পৃথক দেবতা বা দেবী থাকতেন। কোনো গ্রিক নগর-রাষ্ট্রের সেনাবাহিনী যুদ্ধযাত্রা করলে তাদের সামনে থাকত সেই নগরের নিজস্ব দেবতার বিগ্রহ। গ্রিক রাষ্ট্রগুলির যুদ্ধজয়ের অর্থ এক নগরের বিরুদ্ধে অপর নগরের জয় নয়, বরং এক দেবতার বিরুদ্ধে অপর দেবতার জয়।

(৩) দেবালয় ও উৎসব

প্রতিটি দেবতার নিজস্ব দেবালয় ও উৎসব থাকত। গ্রিসের ঐক্যবদ্ধ অলিম্পিকের পূজার্চনার মধ্যেও আঞ্চলিক বিভিন্ন দেবদেবীর উপাসনা চালু ছিল। এই প্রসঙ্গে ড. সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণান বলেছেন, “যদি গ্রিকদের সুনাম অক্ষুণ্ণ থাকে তবে তা তাদের বহুদেবতার আরাধনার জন্যই। দেবতা জিউসকে আমরা অন্য কোনো নামে ডাকলে আমাদের নরকবাস হবে – এমন কথা গ্রিকরা কখনোই বলে না।”

প্রাচীন গ্ৰিসের বিভিন্ন দেবদেবী

প্রাচীন গ্রিসে বিভিন্ন দেবদেবীর মধ্যে বারো অলিম্পিয়ান বা বারোজন দেবদেবী বিশেষ উল্লেখযোগ্য ছিলেন। এঁরা হলেন জিউস, হেরা, পসিডন, ডিমিটার, আফ্রেডিটি, এথেনা, অ্যারেস, অ্যাপোলো, আরটিমিস, হেফেসটাস, হারমিস ও ডায়োনিসাস। এই সকল দেবদেবীর পৃথক পৃথক ক্ষমতা বা নিয়ন্ত্রণক্ষেত্র ছিল। যেমন –

(১) জিউস

প্রাচীন গ্রিক পুরাণে জিউস ছিলেন আকাশ ও বজ্রের দেবতা। তিনি হলেন দেবরাজ অর্থাৎ দেবতাদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ এবং মানবজাতির পিতা।

(২) হেরা

জিউসের স্ত্রী হেরা ছিলেন স্বর্গের রানি।

(৩) পসিডন

প্রাচীন গ্ৰিসের সমুদ্র, ঝড় ভূমিকম্পের দেবতা ছিলেন পসিডন।

(৪) ডিমিটার

গ্রিক পুরাণের শস্য ও উর্বরতার দেবী ছিলেন ডিমিটার।

(৫) আফ্রেডিটি

গ্রিকদের প্রেম, আবেগ, আনন্দ ও সৌন্দর্যের দেবী ছিলেন আফ্রেডিটি।

(৬) এথেনা

জিউসের প্রথম কন্যা এথেনা ছিলেন গ্রিকদের যুদ্ধবিগ্রহ ও চারুশিল্পের দেবী। তাঁর নামানুসারেই গ্রিসের এথেন্স নগর রাষ্ট্রটির নামকরণ হয়েছে।

(৭) অ্যারেস

গ্রিকদের রণদেবতা ছিলেন অ্যারেস।

(৮) অ্যাপোলো

জিউসের পুত্র অ্যাপোলো গ্রিক ও রোমান উভয় সভ্যতারই সংগীত ও জ্ঞানের দেবতা।

(৯) আরটিমিস

গ্রিক পুরাণে উল্লিখিত অরণ্যের দেবী ছিলেন আরটিমিস।

(১০) হেফেসটাস

জিউসের পুত্র হেফেসটাস ছিলেন গ্রিকদের কারিগরি বা প্রযুক্তি বিষয়ক দেবতা।

(১১) হারমিস

গ্রিক পুরাণে উল্লিখিত দেবতা হারমিস ছিলেন দেবতাদের বার্তাবাহক এবং পাতালের পথপ্রদর্শক।

(১২) ডায়োনিসাস

গ্রিকদের সুরার দেবতা ছিলেন জিউসের পুত্র ডায়োনিসাস।

প্রাচীন গ্ৰিসে বারো অলিম্পিয়ান বহির্ভূত দেবদেবী

এই বারোজন প্রধান দেবতা ছাড়াও গ্রিকদের পাতালপুরী বা পরলোকের দেবতা ছিলেন হ্যাডেস এবং চুল্লি, গৃহস্থালি ও পারিবারিক সুখশান্তির দেবী ছিলেন হেস্তিয়া। পরবর্তীকালে গ্রিক সমাজজীবনে বিভিন্ন প্রাচ্যদেবতা স্থান করে নিলে গ্রিক ধর্মে দেবতার সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পায়। মিশরের দেবতা আইসিস ও অ্যামন, এশিয়া মাইনর ও নিকটপ্রাচ্যের দেবতা এটিশ ও এডোনিস প্রমুখের উপাসনাও গ্রিসে প্রচলিত হয়। সেই সঙ্গে গ্রিক রাজাদেরও দেবতারূপে পূজা করার রীতি প্রচলিত হয়।

পলিসের বিভিন্ন দেবদেবী

প্রাচীন গ্ৰিসের পলিস গুলিতে বিভিন্ন দেবদেবীর অস্তিত্ব ছিল। এক্ষেত্রে বিভিন্ন দিক গুলি হল –

(১) পলিসে দেবতার গুরুত্ব

গ্রিসের বিভিন্ন দেবদেবী পলিসগুলির উন্নতির সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত ছিলেন বলে গ্রিকরা বিশ্বাস করত। বৃহৎ দেবদেবীগণ পলিসের নিয়মশৃঙ্খলার ধারক ও বাহক বলে বিশ্বাস করা হত। ধ্রুপদি যুগে পলিসের দেবদেবীদের জন্য পাথরের মন্দির ও প্রাচীর তৈরি করে এবং দেবতাদের মূর্তি নির্মাণ করে শ্রদ্ধা প্রদর্শন করা হত।

(২) পৃথক দেবদেবী

গ্রিসের বিভিন্ন পলিসে যেমন পৃথক দেবদেবীর পূজার প্রচলন ছিল তেমনি একই দেবতা বিভিন্ন পলিসেও পূজিত হতেন। তবে এরূপ ক্ষেত্রে বিভিন্ন পলিসে একই দেবতার গুরুত্বের তারতম্য ছিল। এথেন্সে দেবী এথেনার অত্যধিক গুরত্ব ছিল এবং সেখানে এথেনাকে নগরের অভিভাবিকা বলে মনে করা হত। কিন্তু স্পার্টায় দেবী এথেনার এতটা গুরুত্ব ছিল না। আবার হেরা আরগস নামক নগর-রাষ্ট্রের শ্রেষ্ঠ দেবী হলেও এথেন্সে তিনি শুধু মহিলাদের দ্বারা পূজিত হতেন। তেমনি ডেলফিতে অ্যাপোলো, অলিম্পিয়ায় জিউস এবং করিন্থে আফ্রেডিটি ছিলেন শ্রেষ্ঠ দেবদেবী।

(৩) পৃথক ধর্মীয় অনুষ্ঠান

ভিন্ন ভিন্ন পলিসের ভিন্ন পূজাপদ্ধতি প্রচলিত ছিল। যেমন – আরকাডিয়ায় দেবতা প্যানের উদ্দেশ্যে লিকাইয়া অনুষ্ঠানের প্রচলন ছিল।

(৪) দ্বৈত সত্তা

প্রাচীন গ্রিসের দেবদেবীদের দ্বৈত সত্তার অস্তিত্ব ছিল। দেবদেবীগণ একদিকে যেমন নির্দিষ্ট কোনো পলিসের দেবতা ছিলেন অন্যদিকে তাঁরা আবার সমগ্র গ্রিক জাতিরও দেবতা ছিলেন।

(৫) অনুষ্ঠানাদি

পলিসগুলিতে সারাবছর ধরে দেবতাদের উদ্দেশ্যে নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও রীতিনীতি পালন করা হত।

উপসংহার :- প্রাচীন গ্রিকরা বহু দেবদেবীতে বিশ্বাস করত। তারা প্রকৃতি, মাটির সঙ্গে বীরদেরও পূজা করত। প্রতিটি নগরেরও আলাদা দেবদেবী ছিলেন। গ্রিকরা ফুল, ফল, শস্য দিয়ে দেবদেবীর আরাধনা করত এবং এর জন্য মন্দিরও নির্মিত হয়েছিল। ধর্মীয় আরাধনার অঙ্গ হিসেবে ধর্মীয় শোভাযাত্রা, দেবদেবীর প্রতি প্রার্থনা, দ্রব্যের উৎসর্গীকরণ প্রভৃতি প্রচলিত ছিল।

(FAQ) প্রাচীন গ্রিসে বহুত্ববাদ সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. প্রাচীন গ্রিসের দেবরাজ বা শ্রেষ্ঠ দেবতা কে ছিলেন?

জিউস।

২. প্রাচীন গ্রিসের স্বর্গের রানী কে ছিলেন?

হেরা।

৩. প্রাচীন গ্রিসের শস্য ও উর্বরতা দেবী কে ছিলেন?

ডিমিটার।

৪. প্রাচীন গ্রিসের প্রেম আবেগ আনন্দ ও সৌন্দর্যের দেবী কে ছিলেন?

আফ্রেডিটি।

৫. প্রাচীন গ্রিসের যুদ্ধবিগ্রহ ও চারুশিল্পের দেবী কে ছিলেন?

দেবী এথেনা।

Leave a Comment