চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস প্রসঙ্গে পত্র পত্রিকা থেকে অনুপ্রেরণা, চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক হিন্দুধর্মের অন্তরায় বিনাশী সংঘ প্রতিষ্ঠা, সংঘের কাজ, সংঘের উদ্দেশ্য, চাপেকার ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক অত্যাচারী ইংরেজ কর্মচারীদের হত্যা , চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক মধ্যশ্রেণির বৈপ্লবিক সংগ্ৰামের উদ্বোধন সম্পর্কে জানব

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস

ঐতিহাসিক ঘটনাচাপেকার ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস
দামোদর হরি চাপেকর১৮৬৯-১৮৯৯ খ্রি:
বালকৃষ্ণ হরি চাপেকর১৮৭৩-১৮৯৯ খ্রি:
হিন্দুধর্মের অন্তরায় বিনাশী সংঘ১৮৯৫ খ্রি:
র্্যাণ্ড ও আয়ার্স্ট হত্যা২২জুন, ১৮৯৭ খ্রি:
চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস

ভূমিকা :- মহারাষ্ট্রের জাতীয় জাগরণের প্রধান উদ্যোক্তা ও প্রেরণাদাতা বাল গঙ্গাধর তিলক হলেও তাঁর প্রধান অনুচরগণই সাংগঠনিক নেতৃত্ব গ্রহণ করেন। তাঁদের মধ্যে দামোদর চাপেকার ও বালকৃষ্ণ চাপেকার নামে দুই ভাই এবং গণেশ সাভারকর ও বিনায়ক দামোদর সাভারকর নামে অপর দুই ভাইয়ের নাম বিশেষ উল্লেখযোগ্য।

পত্র পত্রিকা থেকে অনুপ্রেরণা

তিলকের দ্বারা সম্পাদিত দৈনিক কেশরী পত্রিকা, পুনার শিবরাম মহাদেব পরাঞ্জপের দ্বারা সম্পাদিত সাপ্তাহিক পত্রিকা ‘কাল’ ও কৃষ্ণ বর্মার দ্বারা সম্পাদিত এবং লণ্ডন হইতে প্রকাশিত মাসিক পত্রিকা ইণ্ডিয়ান সোসিওলোজিস্ট মহারাষ্ট্রের সংগঠনগুলিকে আদর্শ ও প্রেরণা যোগাত।

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক হিন্দুধর্মের অন্তরায় বিনাশী সংঘ প্রতিষ্ঠা

১৮৯৫ খ্রীষ্টাব্দে চাপেকার-ভ্রাতৃদ্বয় বহু ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র যুব-সংগঠন একত্র করে পুনায় ‘হিন্দুধর্মের অন্তরায় বিনাশী সংঘ’ নামে একটি সংগঠন তৈরি করেন। এটিই মহারাষ্ট্রের প্রথম সুগঠিত ও কেন্দ্রবদ্ধ সংগঠন।

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় প্রতিষ্ঠিত সংঘের কাজ

এই সংঘে যুবকদেরকে শারীরিক ব্যায়াম, সামরিক শিক্ষা, লাঠিখেলা প্রভৃতি শিক্ষা দেওয়া হত। পুলিশের দৃষ্টি এড়াবার জন্যই এই সংঘ ধর্মীয় নাম গ্রহণ করিয়াছিল।

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় প্রতিষ্ঠিত সংঘের উদ্দেশ্য

ব্রিটিশ-বিরোধী বৈপ্লবিক সংগ্রামের প্রস্তুতিই ছিল এই সংঘের মুখ্য উদ্দেশ্য। ১৮৯৭ খ্রীষ্টাব্দে এই সংঘ ইংরেজদের উপর প্রথম আধাত আরম্ভ করে।

চাপেকার ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক অত্যাচারী ইংরেজ কর্মচারীদের হত্যা

১৮৯৭ খ্রীষ্টাব্দের ২২শে জুন ভারতবর্ষের বৈপ্লবিক স্বাধীনতা-সংগ্রামের ইতিহাসে একটি স্মরণীয় দিন। ঐ দিন উক্ত সংঘের প্রতিষ্ঠাতা চাপেকার ভ্রাতৃদ্বয় একত্রে পুনার দুই অত্যাচারী ইংরেজ কর্মচারী র্্যাণ্ড ও আয়ার্স্টকে হত্যা করে।

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক মধ্যশ্রেণির বৈপ্লবিক সংগ্ৰামের উদ্বোধন

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় ভারতের মধ্যশ্রেণীর বৈপ্লবিক স্বাধীনতা সংগ্রামের উদ্বোধন করেন। তাদের সহযোগিতা করেন মহাদেব গোবিন্দ রানাডে।

উপসংহার :- তাঁহাদের আগ্নেয়াস্ত্র হইতে নিক্ষিপ্ত অগ্নি-গোলকই সমগ্র ভারত- বর্ষের স্বাধীনতা সংগ্রামের “অগ্নি-যুগ”-এর আরম্ভ ঘোষণা করে।

(FAQ) চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়ের প্রয়াস সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় কারা ছিলেন।

মহারাষ্ট্রের বিপ্লবী দামোদর হরি চাপেকর ও বালকৃষ্ণ হরি চাপেকর চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় নামে পরিচিত।

২. হিন্দুধর্মের অন্তরায় বিনাশী সংঘ কে প্রতিষ্ঠা করেন?

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয়

৩. কারা কখন র্্যাণ্ড ও আয়ার্স্টকে হত্যা করে?

চাপেকর ভ্রাতৃদ্বয় ২২ জুন ১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে

Leave a Comment