সুস্মিতা সেন

মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন প্রসঙ্গে তার জন্ম, পিতৃপরিচয়, শিক্ষা, ব্যক্তিগত জীবন, প্রণয়, প্রথম বাঙালি তথা ভারতীয় মিস ইউনিভার্স, চলচ্চিত্র জগতে আগমন, অভিনীত চলচ্চিত্র, ওয়েব সিরিজ, সমাজ সেবা, পুরস্কার অর্জন ও ললিত মোদীর সঙ্গে তার সম্পর্ক বিষয়ে জানবো।

মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন

ঐতিহাসিক চরিত্রসুস্মিতা সেন
জন্ম১৯ নভেম্বর, ১৯৭৫ খ্রি:
পিতামাতাসুবীর সেন ও সুভ্রা সেন
পরিচিতিবলিউড অভিনেত্রী
বিশেষ খেতাবমিস ইউনিভার্স
মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন

ভূমিকা :- একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও প্রাক্তন মডেল হলেন সুস্মিতা সেন। সুস্মিতা সেন দেশে এবং বিদেশেও নামকরা সুন্দরীদের মধ্যে একজন। তিনি ১৯৯৪ সালে ‘মিস ইউনিভার্স’ জয়ী।

সুস্মিতা সেনের জন্ম

১৯ নভেম্বর ১৯৭৫ খ্রি হায়দ্রাবাদে বাঙালী বৈদ্যব্রাহ্মণ পরিবারে সুস্মিতা সেন জন্মগ্রহণ করেন।

সুস্মিতা সেনের পিতৃপরিচয়

তার বাবা সুবীর সেন ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রাক্তন উইং কমান্ডার এবং মা সুভ্রা সেন অলঙ্কার ডিজাইনার এবং দুবাইয়ের সাথে সম্পর্কিত একটি দোকানের মালিক। রাজীব সেন নামে তার এক ভাই আছে, যিনি টেলিভিশন অভিনেত্রী চারু অসোপাকে বিয়ে করেছিলেন ।

সুস্মিতা সেনের শিক্ষা জীবন

নতুন দিল্লীর বিমান বাহিনীর গোল্ডেন জুবিলী ইন্সিটিউট-এ সুস্মিতা সেন ভর্তি হন। পরে তিনি সেকেন্দ্রাবাদে সেন্ট অ্যান্ট’স হাইস্কুলে ভর্তি হলেও আর উচ্চ শিক্ষা নিয়ে এগোন নি।

টম বয় সুস্মিতা সেন

সুস্মিতা সেন ছোট বেলায় মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের সাথে বেশি মেলামেশা করতেন। এই কারণে তিনি টম বয় বলে বিবেচিত ছিলেন।

সুস্মিতা সেনের ব্যক্তিগত জীবন

ভারতের সবচেয়ে আড়ম্বরপূর্ণ এবং চাকচিক্যময় মহিলা হিসাবে সুস্মিতা সেন পরিচিত। তিনি রেনে নামের এক বাচ্চা মেয়ে কে ২০০০ সালে দত্তক নিয়ে ইতিহাস তৈরি করেন। মাত্র ২৫ বছর বয়সে এককী নারী হিসেবে শিশু দত্তক নেওয়ায় অভিভাবকত্ব নিয়ে সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্যতার প্রশ্ন ওঠে। কিন্তু মুম্বাই আদালতে সুস্মিতা সেন জয়লাভ করেন। ১৩ জানুয়ারী, ২০১০ সালে তিনি আলিশা নামে তিন মাস বয়সী আর একটি বাচ্চা মেয়ে কে দত্তক নেন।

সুস্মিতা সেনের প্রণয়

মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেনের প্রেম পরিণতি পায় নি। একবার-দু’বার নয়, ১০ বার মন ভেঙেছে তাঁর। তার জীবনের প্রেমিক পুরুষরা হলেন –

(১) বিক্রম ভাট

প্রথম ছবি দস্তকের  শ্যুটিংয়ের সময় থেকেই পরিচালক বিক্রম ভাটের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিক্রম তখন বিবাহিত। মিডিয়ার নজরে আসার পর হইচই শুরু হয়। শোনা যায়, সেই সময় আত্মহত্যার কথা চিন্তা করেছিলেন সুস্মিতা। প্রবল জটিলতা তৈরি হয়। বেশিদিন প্রেম টেকেনি।

(২) রণদীপ হুডা

অভিনেতা রণদীপ হুডার সঙ্গে সুস্মিতার তিন বছর সম্পর্ক ছিল। তাঁদের প্রেম পেজ থ্রির চর্চার বিষয় ছিল সেই সময়। কিন্তু সম্পর্ক টেকেনি। একটি ইন্টারভিউয়ে রণদীপ বলেছিলেন, সুস্মিতার সঙ্গে ব্রেক আপ আমার জীবনের সব থেকে ভালো বিষয়।

(৩) বান্টি সচদেব

খবর অনুযায়ী ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির মালিক বান্টি সচদেবের সঙ্গে বর্তমানে সোনাক্ষি সিনহার প্রেম চলছে। তবে তার আগে সুস্মিতা সেনের সঙ্গেও তাঁকে নিয়ে গুজব রটে ছিল। একসঙ্গে অনেক জায়গায় দুজনকে দেখা যেত। তখন সুস্মিতার ম্যানেজার ছিলেন বান্টি। যদিও সব গুজব হেসে উড়িয়ে দিয়েছেন সুস্মিতা।

(৪) ইমতিয়াজ খাতরি

সুস্মিতার যখন ৩৬ বছর বয়স তখন তিনি ২২ বছরের ব্যবসায়ী ইমতিয়াজ খাতরির প্রেমে পড়েছিলেন। দুজনে একসঙ্গে গোয়াতে একটি ফ্যাশন শো তে অংশ নিয়েছিলেন। সেখান থেকেই বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। দুজনকে নানা স্থানে দেখা যেত। হাসি ঠাট্টার মধ্যেই সম্পর্ক শেষ হয়ে যায়। কেউ প্রেমের কথা স্বীকার করেন নি। দুজনের বক্তব্য, আমরা ভালো বন্ধু।

(৫) মুদ্দাসার আজিজ

দুলহা মিল গ্যায়ার পরিচালক ছিলেন মুদ্দাসার আজিজ। শ্যুটিং থেকেই নায়িকা সুস্মিতার সাথে প্রেমের শুরু। তবে কিছুদিনের জন্য। এই প্রেমে কোনো প্রতিশ্রুতি ছিল না। ছিল শুধুই টাইমপাশ।

(৬) সাবির ভাটিয়া

হটমেলের প্রতিষ্ঠাতা সাবির ভাটিয়া ও সুস্মিতার দীর্ঘদিন সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সুস্মিতা জীবনে নিজের ছন্দে বাঁচেন। কারও অধীনে থাকা পচ্ছন্দ নয়। শোনা যায়, সাবির ভাটিয়া তাঁর প্রেমিকাকে ১০ ক্যারেটের হীরের আংটি দিয়েছিলেন। যদিও সম্পর্ক ভেঙে যায়।

(৭) সঞ্জয় নারাং

হোটেল ব্যবসায়ী সঞ্জয় নারাংয়ের সঙ্গে খুব অল্প দিনের জন্য প্রেমের বাঁধনে বাঁধা পড়েন সুস্মিতা। ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে সম্পর্কের ঘোষণা করেন বিশ্ব সুন্দরী। তবে, কিছুদিনের মধ্যেই সব জলে যায়।

(৮) রিতিক ভাসিন

হোটেল ব্যবসায়ী রিতিক ভাসিনের সঙ্গে চার বছর সম্পর্ক ছিল সুস্মিতার। বিভিন্ন বিবাহ বা অন্য অনুষ্ঠানে দুজনকে হাতে হাত রেখে দেখা যেত। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয় নি।

(৯) রহমান শওয়াল

১৫ বছরের ছোট প্রেমিক রহমানের প্রেমে পাগল ছিলেন সুস্মিতা। মডেল রহমান এবং সুস্মিতা লিভ-ইন সম্পর্কে ছিলেন। ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল সাইটে শেয়ার করতেন দুজনে। কিন্তু সেই অসম বয়সী প্রেম অকালেই ভেঙে পড়ে।

(১০) ললিত মোদি

বর্তমানে ব্যবসায়ী ও আইপিএলের প্রতিষ্ঠাতা ললিত মোদির মধ্যে ফের ভালোবাসা খুঁজে পান সুস্মিতা। বিষয়টি প্রকাশ্যে আনেন ললিত মোদি নিজেই। তিনি ট্যুইট করে দুজনের মালদ্বীপ ভ্রমণের ছবি দিয়ে ভালোবাসার কথা ঘোষণা করেন। এখন ১০ নম্বর প্রেমিকের সঙ্গে প্রেম উদযাপন করছেন ৪৭ বছরের সুস্মিতা সেন। কতদিন সেই প্রেম টেকে সেটাই দেখার।

প্রথম বাঙালি তথা ভারতীয় মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন

তিনি প্রথম বাঙালি তথা প্রথম ভারতীয় হিসেবে মিস ইউনিভার্সের মুকুট লাভ করেন।

সুস্মিতা সেনের সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ

কিশোরী বয়সে সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় সুস্মিতা সেন অংশগ্রহণ করেন।

(১) ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন

১৯৯৪ সালে তিনি ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া ইউনিভার্স -এর মুকুট লাভ করেন এবং মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ লাভ করেন

(২) মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন

১৯৯৪ সালের মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় সুস্মিতা সেন প্রাথমিক পর্বে তৃতীয় স্থান লাভ করেন। প্রথম ছিলেন মিস কলম্বিয়া ক্যারোলিনা গোমেজ ও দ্বিতীয় ছিলেন মিস গ্রিস রিয়া টোটোঞ্জি। পরবর্তী পর্বগুলোতে তিনি দ্বিতীয়, পঞ্চম ও তৃতীয় স্থান লাভ করেন। চূড়ান্ত পর্যায়ে তিনি মিস ইউনিভার্স ১৯৯৪-এর শিরোপা ও মুকুট জয় করেন। তিনি প্রথম ভারতীয় হিসেবে এই উপাধি লাভ করেন।

চলচ্চিত্র জগতে সুস্মিতা সেন

  • (১) মিস ইউনিভার্স খেতাব জেতার পর সুস্মিতা সেন চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন। তার প্রথম চলচ্চিত্র দস্তক মুক্তি পায় ১৯৯৬ সালে। তিনি শরদ কাপুরের বিপরীতে অভিনয় করেন। ১৯৯৭ সালে তামিল চলচ্চিত্র রাতচাগান-এ নাগার্জুনের বিপরীতে শ্রেষ্ঠাংশে তিনি অভিনয় করেন।
  • (২) দুই বছর পর তিনি ডেভিড ধবনের হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র বিবি নাম্বার ওয়ান-এ রূপালী চরিত্রে অভিনয় করেন। ছবিটি ১৯৯৯ সালের চতুর্থ সর্বোচ্চ আয়কারী চলচ্চিত্র ছিল। একই বছর তিনি সির্ফ তুম ছবিতে অভিনয় করেন। ২০০০ সালে তাকে ফিজা চলচ্চিত্রের “মেহবুব মেরে” গানে দেখা যায়

তামিল ও বাংলা চলচ্চিত্রে সুস্মিতা সেনের অভিনয়

মূলত হিন্দি চলচ্চিত্রে কাজের জন্য পরিচিতি লাভ করলেও তিনি তামিল ও বাংলা ভাষার চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন।

সুস্মিতা সেন অভিনীত বাংলা চলচ্চিত্র

পাঁচ বছর বিরতির পর ২০১৫ সালে তিনি অঞ্জন দত্তের বিপরীতে নির্বাক নামে একটি বাংলা নাটকে অভিনয় করেছিলেন। তার কর্মজীবনে এটিই ছিল বাংলা ভাষায় প্রথম চলচ্চিত্র। News18 -এর শোমিনী সেন লিখেছেন, “সুস্মিতা সেন ভালো কিন্তু তার প্রতিভা থেকে আরও অনেক কিছু করা যেতে পারে।”

ওয়েব সিরিজে সুস্মিতা সেন

  • (১) আবার পাঁচ বছরের বিরতির পরে ২০২০ সালে Disney+ Hotstar- এর ক্রাইম থ্রিলার আর্যা দিয়ে ওয়েবে আত্মপ্রকাশ করেন সুস্মিতা সেন। তিনি চন্দ্রচূড় সিংয়ের বিপরীতে একজন মাফিয়া কুইন চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।
  • (২) সুস্মিতা সেন ২০২০ ফিল্মফেয়ার ওটিটি অ্যাওয়ার্ডে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছেন। এরপর ২০২২ সালে সিরিজের দ্বিতীয় সিজনে তার ভূমিকার পুনরাবৃত্তি করেন। এনডিটিভি উল্লেখ করেছে, “সুস্মিতা সেন সিজন 1-এ যেখান থেকে ছেড়েছিলেন সেখান থেকে চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি শক্তিতে ভরপুর আরেকটি ব্যতিক্রমী পারফরম্যান্স প্রদান করেন।”

সুস্মিতা সেন অভিনীত চলচ্চিত্র সমূহ

মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন অভিনীত চলচ্চিত্র গুলি হল – ম্যায় হুঁ না, ইট ওয়াজ রেইনিং দ্যাট নাইট, দুলহা মিল গ্যায়া, সময় : হোয়েন টাইম স্ট্রাইকস, নির্বাক, যদি এমন হতো, দস্তক, বিবি নাম্বার ওয়ান, স্রিফ তুম, আগাজ, আখে, তুমকো না ভুল পায়েংগে,

জোর, যিন্দাগি রক্স, নো প্রব্লেম,রাতচাগান, মেয়নে পেয়ার কিউ কিয়া প্রভৃতি ছাড়াও তিনি ৩৫ টিরও বেশি ছবিতে অভিনয় করেছেন।

সমাজসেবী সুস্মিতা সেন

চলচ্চিত্রে অভিনয় করার পাশাপাশি সুস্মিতা সেন একজন সক্রিয় থিয়েটার শিল্পী এবং সামাজিকীকরণের পক্ষে ছিলেন। তার সামাজিক কাজের জন্য ২০১৩ সালে তিনি মাদার টেরেসা পুরষ্কারে সম্মানিত হয়েছিলেন। ২০১৬ সালের ইন্ডিয়ান লিডারশিপ কনক্লেভে শিল্পকলায় অবদানের জন্য তিনি “শাশ্বত সৌন্দর্য ও দশকের অভিনেত্রী” পুরস্কার লাভ করেন।

সুস্মিতা সেন কর্তৃক চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন

বিবি নাম্বার ওয়ান চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৯৯ সালে সির্ফ তুম চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এছাড়াও তিনি একাধিক পুরস্কার অর্জন করেছেন। এছাড়া তিনি রাজীব গান্ধী পুরস্কার, মাদার টেরিজা পুরস্কার ও আইফা পুরস্কার লাভ করেন।

মিস ইউনিভার্স বিচারক সুস্মিতা সেন

জানুয়ারী ২০১৭ সালে সুস্মিতা সেন মিস ইউনিভার্স ২০১৬-র একজন বিচারক হিসেবে মল অফ এশিয়া অ্যারেনা, পাসে, মেট্রো ম্যানিলা, ফিলিপাইনে উপস্থিত হন। বিচারক হিসেবে তার সাথে যোগ দেন সিনথিয়া বেইলি, মিকি বোর্ডম্যান, ফ্রান্সিন লাফ্রাক, মিস ইউনিভার্স ২০১১ লেইলা লোপেস এবং মিস ইউনিভার্স ১৯৯৩ ডায়নারা টরেস।

সুস্মিতা সেন ও ললিত মোদীর সম্পর্ক

  • (১) ভারতের প্রথম মিস ইউনিভার্স এবং একজন দুর্দান্ত মডেল ও অভিনেত্রী হলেন সুস্মিতা সেন। অন্যদিকে ভারতে আইপিএল প্রতিযোগিতার সূচনা করেন ললিত মোদী। তিনি ২০২২ সালের জুলাই মাসে তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে সুস্মিতা সেনের সাথে একটি ছবি শেয়ার করে লিখছিলেন যে তিনি বর্তমানে ভারতের প্রথম মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেনের সাথে ডেট করছেন।
  • (২) আবার সুস্মিতা সেনও তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেছেন যে তিনি ললিত মোদীকে ডেট করছেন।  দুজনেই একে অপরকে দীর্ঘদিন ধরে চিনলেও ডেটের খবর তাদের দুজনকেই বলিউডের খবরের শিরোনামে এনেছে।  যদিও দু’জনেই স্পষ্ট করে বলেছেন যে তারা একে অপরকে ডেট করছেন, তবে আগামী সময়ে দুজনেই বিয়ে করতে পারেন।

সুস্মিতা সেনের বাংলাদেশ ভ্রমণ

বাংলাদেশের আমন্ত্রনে মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ ২০১৯-এর বিশেষ অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন সুস্মিতা সেন। ইনস্টাগ্রামে তিনি লিখেছেন –

“কী রাত ছিল। শিরিন আখতার শিলাই প্রথম যিনি বাংলাদেশের হয়ে মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে পৌঁছবেন। তাঁকে মুকুট পরাতে পেরে সম্মানিত। বাংলাদেশের ইতিহাসের অংশ হতে পেরে গর্বিত।”

উপসংহার :- সুস্মিতা সেনই ছিলেন বলিউডের প্রথম অভিনেত্রী, যিনি মিস ইউনিভারস এর খেতাব অর্জন করতে সক্ষম হন।

(FAQ) মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন সম্পর্কে জিজ্ঞাস্য?

১. সুস্মিতা সেন কে ছিলেন?

প্রথম বাঙালি মিস ইউনিভার্স ও বলিউড অভিনেত্রী।

২. কোন বছর সুস্মিতা সেন মিস ইউনিভার্স হয়েছিলেন?

১৯৯৪ সালে।

৩. সম্প্রতি কার সাথে সুস্মিতা সেনের ডেটিং এর খবর ভাইরাল হয়?

ভারতীয় ক্রিকেট সংগঠক ললিত মোদী।

৪. সুস্মিতা সেনের দত্তক কন্যাদের নাম কি?

রেনে ও আলিশা।

Leave a Comment